চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমেছে ২০-২৫ টাকা

এক লাফে বেড়ে ৩ থেকে ৪ দিন পর অবশেষে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। বর্তমানে বাজারে দেশি প্রতিকেজি পেঁয়াজ ৮৫ টাকায় আর আমদানি করা পেঁয়াজ ৭৫ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজার, মতিঝিল এজিবি কলোনী ও হাতিরপুলসহ কয়েকটি বাজারে ঘুরে এই চিত্র পাওয়া গেছে।

বিজ্ঞাপন

এই হিসাবে এক দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের কেজিতে কমেছে প্রায় ২০ থেকে ২৫ টাকা। গতকাল বুধবারও দেশি পেঁয়াজ ১১০ টাকা আর আমদানি করা পেঁয়াজ ৯৫ টাকায় বিক্রি হয়েছিল।

তবে এজিবি কলোনী ও হাতিরপুল বাজারে দেশি পেঁয়াজ ৮৫ টাকা আর আমদানি করা পেঁয়াজ ৭৫ টাকা বিক্রি হলেও উভয় ধরনের পেঁয়াজই কারওয়ান বাজারে যথাক্রমে ৮০ ও ৭০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে।

অবশ্য এখানে পাইকারি আড়ৎ থাকায় অন্যান্য স্থানের তুলনায় ৫ টাকা কমে পাওয়া যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ক্রেতারা। তবে দু’একদিনের মধ্যে দাম আরও কমে যাবে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

কোরবানি ঈদের পর থেকেই পেঁয়াজের দাম বাড়তে শুরু করে। এরপর গত ৩০ সেপ্টেম্বর হঠাৎ করেই ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ায় এক লাফে দাম বেড়ে দাঁড়ায় ১১৫ থেকে ১২০ টাকায়। এরপর ভারতের বিকল্প হিসেবে মিশর, তুরস্ক ও মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানি করার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ইতোমধ্যে মিয়ানমার থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ বাজারে পৌঁছে গেছে। তুরস্ক ও মিশর থেকেও পেঁয়াজ পথিমধ্যে রয়েছে।

এছাড়া বাজারে ক্রেতাদের চাপ কমাতে সরকারি বিপণন সংস্থা টিসিবির মাধ্যমেও পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে সরকার। রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ৩৫টি ট্রাকের মাধ্যমে পেঁয়াজ বিক্রি করছে টিসিবি।

দাম নিয়ন্ত্রণে আনতে পেঁয়াজ আমদানির জন্য ঋণের সুদ হার কমিয়ে সর্বোচ্ছ ৯ শতাংশ নির্ধারণ করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। অতিরিক্ত দাম নেয়ার কারণে ঢাকা ও চট্টগ্রামের কয়েকটি স্থানে অভিযানও চালিয়েছে সরকার।

এসব ইতিবাচক সিদ্ধান্তের কারণে পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করেছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

কারওয়ান বাজারের লাকসাম বাণিজ্যালয়ের পেঁয়াজ বিক্রেতা মোস্তফা বলেন, ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ার ফলে হঠাৎ করে দাম বেড়েছে। তবে মিয়ানমারসহ অনান্য দেশ থেকে সরকার জরুরি ভিত্তিতে পেঁয়াজ আমদানি করায় সংকট কমছে। এ কারণে পেঁয়াজের দাম কমছে। শিগগিরই আরো কমে যাবে।

শ্যামবাজারের ব্যবসায়ী সমিতির প্রচার সম্পাদক শহিদুল ইসলাম চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, দাম কমতে শুরু করেছে। আরো কমবে বলে আশা করি।

বুধবার বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশিও বলেছিলেন, দুই-এক দিনের মধ্যে পেঁয়াজের দাম ৮০ টাকায় নামবে। তিনি বলেছেন, মিয়ানমার থেকে ৪৮৩ টন পেঁয়াজ আনা হয়েছে। আরো ৫শ’ টন পেঁয়াজ দেশে পৌঁছানোর অপেক্ষায়।

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির কারণ খুঁজতে ১০টি মনিটরিং টিম কাজ করছে। বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং গুদামকে জরিমানা করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাবে, দেশে বছরে পেঁয়াজের চাহিদা রয়েছে প্রায় ২৪ লাখ টনের মতো। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মতে, এবার দেশে পেঁয়াজ উৎপাদন হয়েছে ২৩ লাখ টনের মতো। অবশ্য এর প্রায় ৩০ শতাংশ সংরক্ষণকালে পচে যায়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে, গত বছর ভারত থেকে প্রায় ১১ লাখ টন পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন