চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘পৃথিবীকে বাসযোগ্য রাখতে পরিবেশ সুরক্ষার বিকল্প নেই’

পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা বলেছেন: পৃথিবীকে বাসযোগ্য রাখতে হলে পরিবেশের সুরক্ষা জরুরী। প্রয়োজন জীব বৈচিত্রের সংরক্ষণ। গ্রিন হাউস গ্যাসের নিঃসরণ কমাতে হবে। নির্দিষ্ট পরিমাণ বন সংরক্ষণ করতে হবে। রাসায়নিক এবং ডিভাইসের ব্যবহার দিয়ে ভাবতে হবে।

আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির আয়োজনে এক ওয়েবিনারে আজ বৃহস্পতিবার তারা এসব কথা বলেন।

এই অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নদী ও জলবায়ু বিশেষজ্ঞ ডক্টর আতিক রহমান।

বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ড. খন্দকার ফজলুল হকের সভাপতিত্বে এবং কমিটির সদস্য সচিব ও আওয়ামী লীগের বন এবং পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়।

বিজ্ঞাপন

আলোচনায় অংশ নিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী বলেন: পৃথিবীকে বাসযোগ্য রাখতে হলে জীববৈচিত্রের সমন্বয় জরুরী। কেননা বন ধ্বংস করা হলে প্রাণীকুল বাইরে বেরিয়ে আসবে এবং তাতে মানবজাতি আরো হুমকির মুখে পড়বে। মানুষের কর্মকাণ্ডের কারণেই আজ পরিবেশ তথা পৃথিবীর হুমকির সম্মুখীন।

মন্ত্রী বলেন: ভোগের সংস্কৃতি থেকে সবাইকে বেরিয়ে আসতে হবে এবং পৃথিবীতে শুধু আমার এই মানসিকতা ত্যাগ করতে হবে। ‌অন্যান্য প্রাণীদের বাঁচতে দিতে হবে মানুষের বৃদ্ধি কমাতে হবে।

তিনি উদাহরণ দিয়ে বলেন: আলোচনা আছে করোনাভাইরাস প্রাণীদেহে থেকে মানুষের মধ্যে প্রণীত হয়েছে। যদি মানুষ ক্রমাগত বরং দখল করতে থাকে কৃষি জমি দখল করতে থাকে তাহলে এভাবে আরো অনেক প্রাণী বাইরে বেরিয়ে আসবে এবং মানুষ নতুন নতুন রোগের সংক্রমিত হতে পারে। তাই নিজের প্রয়োজনের সবকিছু ব্যবহারের মানসিকতা পরিহার করতে হবে।

ডক্টর আতিক রহমান তার প্রবন্ধ পরিবেশ এবং জলবায়ুর বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরে এই সংকট নিরসনে যে পদক্ষেপ নিতে হবে তা সবিস্তারে বর্ণনা করেন।

ওয়েবিনারে আলোচক হিসেবে আরও অংশ নেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক এ কিউ এম মাহবুব, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপ-উপাচার্য ডক্টর নাসরিন আহমেদ, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক ড. জাকির হোসেন, স্থপতি ইকবাল হাবিব, সাংবাদিক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজাসহ অনেকে।

বিজ্ঞাপন