চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পুষ্টি ও নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা বর্তমান সরকারের চ্যালেঞ্জ: আব্দুর রাজ্জাক

পুষ্টি ও নিরাপদ খাদ্য দেশের জনগনের জন্য নিশ্চিত করা বর্তমান সরকারের চ্যালেঞ্জ বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এবং অর্থ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক।

তিনি বলেন, সামাজিক উন্নয়ন, দেশের রাজনীতি ,একটি দেশের অর্থনীতির মূল কাঠামোর ভিত্তি হলো কৃষি। আমরা এক সময় খাদ্যের ঝুঁলি নিয়ে সারা দেশে ঘুরে বেড়াতাম। বাংলাদেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। যা আমাদের নির্বাচনি ইশতেহারে ছিল।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) বিকালে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের (আইইবি) কাউন্সিল হলে কৃষিকৌশল বিভাগের আয়োজিত ‘Agricultural Mechanisation: Status, Challenges and Policy issues in Bangladesh’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিজ্ঞাপন

আওয়ামী লীগের এই সভাপতিমন্ডলীর সদস্য বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হলেন কৃষি বান্ধব, কৃষককে ভালবাসেন। কৃষি ভিত্তির ওপর নির্ভর করেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর তাঁর ভাবনা থেকে সর্বোচ্চ সুব্যবস্থা নিয়েছেন কৃষকদের জন্য। আর জনগণের নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা এটা আমাদের ইশতেহার অন্তর্ভুক্ত ছিল। সেটা আমরা পরিপূর্ণ করতে পেরেছি। সেই জন্য আমরা নেপালে খাদ্য সহযোগিতা করতে পেরেছি। দশ লক্ষ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছি। যা শুধু মাত্র সম্ভব হয়েছে আমাদেও কৃষির কারণে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আইইবির প্রেসিডেন্ট এবং আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর বলেন, খাদ্য নিরাপত্তা ও টেকসই কৃষি উন্নয়নের নিশ্চিত করে জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের জন্য বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। জলবায়ু পরিবর্তন জনিত নানা প্রতিকূলতা ও সীমাবদ্ধতা মোকাবেলা করে এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা পূরনে কৃষি যান্ত্রিকীকরণ নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। সেই লক্ষে বর্তমান সরকার কৃষি যান্ত্রিকীকরণে গুরুত্ব আরোপ করে কৃষি যান্ত্রিকীকরণ রোড ম্যাপ ২০২১, ২০৩১ এবং ২০৪১ প্রণয়ন করেছে। যাতে স্বল্প , মধ্যম ও দীর্ঘ মেয়াদী বিভিন্ন কর্মকৌশল গৃহীত রয়েছে।

প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর আরও বলেন, কৃষিতে বিদ্যমান সকল প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে আধুনিক , ব্যয় সাশ্রয়ী এবং লাভজনক কৃষি ব্যবস্থা প্রবর্তনের ক্ষেত্রে প্রণীত কৃষি যান্ত্রিকীকরণ রোডম্যাপটি কার্যকর ও সুদূর প্রসারী ভূমিকা রাখবে বলে আশা করছি। বর্তমান সরকার কৃষকদেরকে আধুনিক কৃষি যন্ত্র ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করার জন্য কৃষি যন্ত্রপাতি যেমন, কম্বাইন হারভেস্টার রিপার, রাইস্ ট্রান্সপ্লান্টার থ্রেসার, সিডার ইত্যাদি যন্ত্র ক্রয় কৃষকদেরকে ৫০-৭০% হারে উন্নয়ন সহায়তা তথা ভর্তুকী প্রদান করছে। এর ফলে কৃষকদের মাঝে ব্যাপকভাবে যন্ত্র ক্রয়ের চাহিদা বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমান সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের ফলে একটি নতুন আধুনিক যান্ত্রিক কৃষি ব্যবস্থাপনা সূচনা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি শক্তি ও যন্ত্র বিভাগের অধ্যাপক ড. প্রকৌশলী মো. মঞ্জুরুল আলম। সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) এর সম্মানী সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী খন্দকার মনজুর মোর্শেদ। এছাড়া সেমিনারে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের সেচ ও পানি ব্যবস্থাপনা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান এবং বিশ্বব্যাংকের সাবেক সেচ প্রকৌশলী ড. মো. আবদুল গণি। অনুষ্ঠানে আইইবির কৃষিকৌশল বিভাগের সম্পাদক প্রকৌশলী মো. শফিকুল ইসলাম শেখ (শফিক) এর সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন, আইইবির কৃষিকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. আবুল কাশেম মিয়া।

Bellow Post-Green View