চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পুরো বিশ্বে প্রশংসিত, তবে নিজ দেশেই বিতর্কিত

নিজ দেশ চীনে বিতর্কের শিকার গোল্ডেন গ্লোব বিজয়ী ‘নোম্যাডল্যান্ড’ ছবির নির্মাতা কোল ঝাও

প্রথম এশিয়ান নারী হিসেবে গোল্ডেন গ্লোবে সেরা নির্মাতার পুরস্কার জিতেছেন কোল ঝাও। পুরো বিশ্বে প্রশংসা পাচ্ছেন তিনি। তবে নিজের দেশে বিতর্কের শিকার হতে হচ্ছে তাকে।

বেইজিং এ জন্ম নেয়া নির্মাতা কোল ঝাও ‘নোম্যাডল্যান্ড’ ছবির জন্য অস্কার জিতে যেতে পারেন, এমনটাই মনে করছেন চলচ্চিত্র বোদ্ধারা। পুরো বিশ্বে তাকে নিয়ে মাতামাতি হলেও চীনের সেন্সর ছবিটি নিয়ে ঝামেলা করছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ছবি সম্পর্কিত বেশ কিছু পোস্টও সরিয়ে ফেলা হয়েছে সম্প্রতি। এতে প্রশ্ন উঠছে ছবিটি কি চীনে মুক্তির অনুমতি পাবে কিনা!

গত সপ্তাহ জুড়ে ঝাওকে নিয়ে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা প্রশ্ন তুলেছেন, ইউকে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশোনা করা ঝাও এখনও চীনা নাগরিক আছেন কিনা আর যদি তাকে চীনা হিসাবে গণ্য করা হয় তবে তিনি ২০১৩ সালে দেশ সম্পর্কে সমালোচনামূলক মন্তব্য কেন করেছিলেন? তাদের মতে, ঝাও চীনকে ‘অপমান’ করেছিলেন।

বিজ্ঞাপন

নোম্যাডল্যান্ড ছবির একটি দৃশ্য

ছবির প্রচারণামুলক বেশ কিছু পোস্ট সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। ছবির মুক্তির তারিখ সম্পর্কিত হ্যাশট্যাগ দেয়া পোস্টগুলো আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। চীনের জনপ্রিয় অ্যাপ ‘ডউবান’-এ প্রকাশিত পোস্টটিও ডিলিট হয়ে গেছে শুক্রবার।

২০১৩ সালের এক সাক্ষাতকারে এক ম্যাগাজিনে নির্মাতা বলেছেন, ‘যখন আমি টিনএজার ছিলাম, চীনের সব জায়গা মিথ্যায় ভরা ছিল।’ গতবছরের ডিসেম্বরে এক সাক্ষাৎকারে কোল ঝাও বলেছিলেন, ‘আমেরিকাই এখন আমার দেশ।’ পুরনো এই সাক্ষাৎকারগুলোই নতুন করে আলোচনায় উঠে এসেছে।

‘নোম্যাডল্যান্ড’ ২৩ এপ্রিল চীনে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিতর্কের কারণে এখন ছবিটির মুক্তি অনিশ্চিত হয়ে গেছে। -ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

বিজ্ঞাপন