চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পিতার দেখানো পথেই প্রধানমন্ত্রী

আবারো পিতার দেখানো পথ অনুসরণ করে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বাংলা ভাষায় ভাষণ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশ্বসংস্থাটির ৭০তম নিয়মিত অধিবেশনের তৃতীয় দিনে ১৪তম বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন তিনি।

১৯৭৪ সালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে প্রথমবারের মতো বাংলায় ভাষণ দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, সংঘাত, বিদ্বেষ ও বৈষম্যমুক্ত শান্তিপূর্ণ নিরাপদ উন্নত বিশ্ব গড়তে বিশ্বনেতা ও বিশ্ববাসীর প্রতি আহবান জানান।

তিনি বলেন, ‘সবার নিয়তি একইসূত্রে গাঁথা’ পূর্বসূরীদের এই বিশ্বাসের উপর ভিত্তি করে এই বিশ্বসংস্থার গোড়াপত্তন। সত্তর বছর ধরে জাতিসংঘ মানব সম্প্রদায়ের জন্য আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতীক হয়ে আছে।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদকে বর্তমান বিশ্বের প্রথম চ্যালেঞ্জ উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম নেই, কোনো সীমানা নেই। সন্ত্রাসবাদ এবং জঙ্গিবাদ একটা বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সব রাষ্ট্রকে একযোগে কাজ করতে হবে।

‘আমাদের সরকার সব ধরনের সান্ত্রাসবাদ সহিংস জঙ্গিবাদ এবং মৌলবাদের প্রতি জিরো টলারেন্স নীতিতে চলছে। শান্তি সমুন্নত রাখতে সমাজে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা চেতনা থেকেই যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের প্রয়োজন রয়েছে।’

তিনি বলেন, এই ধরিত্রী, এর প্রাকৃতিক সম্পদ, জীববৈচিত্র্য এবং জলবায়ু সংরক্ষণের জন্য সকল কার্যক্রম বাস্তবায়নে সকলের দৃঢ় প্রত্যয় থাকতে হবে।

পৃথিবীর সব দেশের সাথে আঞ্চলিক সহযোগীতা বাড়ানোর কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এমডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশ যেভাবে কাজ করেছে, তা দৃষ্টান্ত হিসেবে গ্রহণ করে এসডিজি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রেও তার প্রয়োগ করা হবে।

বিজ্ঞাপন