চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পিএইচডি-মাস্টার্স ডিগ্রির কোনো মূল্য নেই: তালেবান শিক্ষামন্ত্রী

মাস্টার্স-পিএইচডি ডিগ্রির কোনো মূল্য নেই বলে মন্তব্য করেছেন নবঘোষিত তালেবান সরকারের শিক্ষামন্ত্রী শেখ মৌলভি নুরুল্লাহ মুনির।

তিনি বলেছেন, এখনকার পিএইচডি-মাস্টার্স ডিগ্রির কোনো মূল্য নেই। কারণ মোল্লা ও তালেবান নেতাদের কারও মাস্টার্স এবং পিএইচডি ডিগ্রি নেই। কিন্তু তারাই শ্রেষ্ঠ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার তালেবান সরকারের মন্ত্রিসভা ঘোষণা করা হয়েছে। যেখানে শিক্ষামন্ত্রী হয়েছেন মৌলভি নুরুল্লাহ। দায়িত্ব পেয়েই তিনি আধুনিক সভ্যতা বিরোধী বিস্ফোরক এই মন্তব্য করে বসলেন।

বিজ্ঞাপন

তবে মুনিরের এই মন্তব্যের কড়া সমালোচনা শুরু হয়েছে। আফগানদের একাংশের আশঙ্কা, গত ২০ বছরে আফগানিস্তানে যে শিক্ষাব্যবস্থা চালু হয়েছিল, এই শাসনে তা ভেঙে পড়তে পারে। এর আগে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তানে তালেবান শাসনে মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার অধিকার ছিলো না। কিন্তু এ বার কাবুলের দখল নেওয়ার পরেই তারা জানিয়ে দেয়, মেয়েরা স্কুল-কলেজে যেতে পারবে। তবে শরিয়াহ আইন মেনে। অর্থাৎ হিজাব পরতে হবে তাদের। ছেলে-মেয়েদের আলাদা বসতে হবে বলেও জানায় তারা।

আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়, তালেবানের এই নির্দেশ মেনে নেন ছাত্রীরা। কিন্তু পরবর্তীকালে তালেবান জানায়, শুধু হিজাব নয় আবায়া ও নিকাবও পরতে হবে তাদের। এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছে ছাত্রছাত্রীদের একাংশ। ফলে কাবুলে বিশ্ববিদ্যালয় খুললেও ক্লাসরুম প্রায় ফাঁকা। তালেবান ফতোয়ার প্রতিবাদ করেছেন অধ্যাপকরাও।

জাতিসংঘের কালো তালিকায় থাকা তালেবান আন্দোলনের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা মোল্লা মোহাম্মদ হাসান আখুন্দ এই মন্ত্রিপরিষদে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

যাকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী করা হয়েছে, তিনি হাক্কানি নেটওয়ার্কের প্রধান সিরাজউদ্দিন হাক্কানি। দীর্ঘদিন ধরেই যিনি যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসী তালিকায় আছেন। ঘোষিত এই তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপপ্রধানমন্ত্রী হয়েছেন তালেবানের সহ-প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল গনি বারাদার। তালেবানের প্রতিষ্ঠাতা মোল্লা মোহাম্মদ ওমরের ছেলে মোল্লা ইয়াকুবকে করা হয়েছে ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী। এই সরকারে দ্বিতীয় উপপ্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করবেন আব্দুল সালাম হানাফি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে আমির খান মুক্তাকীর নাম ঘোষণা করা হয়েছে। ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাখা হয়েছে মোহাম্মদ ইয়াকুবকে।