চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পাসপোর্টের উপ-পরিচালকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুদক

ঘুষ গ্রহণপূর্বক অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে পাসপোর্ট অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক তারিক সালমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মঙ্গলবার দুদকের প্রধান কার্যালয় সেগুনবাগিচায় সকাল ১০ থেকে ১১টা পর্যন্ত এক ঘণ্টা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিষয়টি চ্যানেল আই অনলাইনকে নিশ্চিত করেন দুর্নীতি দমন কমিশনের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য।

তারিক সালমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন দুদকের উপ-পরিচালক আবু বকর সিদ্দিকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি দল।তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাসপোর্টের জিম গ্রাফিক হালিমা খাতুন সম্পাকে তলব করা হলেও তিনি হাজির হননি দুদকে।

এর আগে গত ১১ জানুয়ারি দুদক কার্যালয় থেকে পাসপোর্টের চারজনের কাছে সংস্থাটি উপ-পরিচালক আবুবকর সিদ্দিক সাক্ষরিত এক চিঠিতে তাদের তলব করা হয়।

বিজ্ঞাপন

দুদকের তলবি নোটিশে পরিচালক (পাসপোর্ট ও ভিসা) সাইফুর রহমান ও প্রকল্প পরিচালক এ কে এম মাজহারুল ইসলাম ১৭ জানুয়ারি দুপুর ১২টা এবং উপ-পরিচালক তারিক সালমান এবং জিম গ্রাফিক হালিমা খাতুন সম্পাকে ১৯ জানুয়ারি দুপুর ১২টায় তলব করা হয়।

তবে এর আগে গত ১৭ জানুয়ারি তলবি নোটিশে পরিচালক (পাসপোর্ট ও ভিসা) সাইফুর রহমান ও প্রকল্প পরিচালক এ কে এম মাজহারুল ইসলাম দুপুর ১২টা হাজির হননি।

জানা গেছে, ভারতীয় এক নাগরিককে পাসপোর্ট দেওয়ার সূত্র ধরে দুদক পাসপোর্ট অধিদপ্তরের বেশকিছু কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

ভারতীয়কে বাংলাদেশি পাসপোর্ট দেয়া সংক্রান্ত অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা মেলার পর পাসপোর্ট অধিদপ্তরের এই দুই কর্মকর্তাসহ মোট চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গত ১১ জানুয়ারি দুদক প্রধান কার্যালয়ের উপ পরিচালক মো আবু বকর সিদ্দিক স্বাক্ষরিত এই চিঠি পাঠানো হয়।

দুদকের ওই তলবি নোটিশে বলা হয়েছে, পাসপোর্ট অফিসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণপূর্বক ভারতীয় নাগরিক হাফিজ আহমেদকে পাসপোর্ট প্রদান ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। সুষ্ঠু অনুসন্ধানের স্বার্থে বর্ণিত অভিযোগের বিষয়ে তাদের বক্তব্য শোনা প্রয়োজন।

বিজ্ঞাপন