চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পাতানো ছিল ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল?

দাবি শ্রীলঙ্কান সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রীর

২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারত-শ্রীলঙ্কা ম্যাচটি পাতানো ছিল বলে দাবি লঙ্কান সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রী মাহিন্দানান্দা আলুথামাগের। যদিও ম্যাচ পাতানোর স্বপক্ষে কোনো উপযুক্ত প্রমাণ উপস্থাপন করতে পারেননি তিনি।

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে সেই ফাইনালে প্রথমে ব্যাট করে ২৭৪ রান তুলেছিল শ্রীলঙ্কা। জবাবে ৬ উইকেট ও ১০ ওভার হাতে রেখেই জিতে নেয় মহেন্দ্র সিং ধোনির ভারত। কুলাসেকারার বলে ছয় হাঁকিয়ে ২৮ বছর পর বিশ্বকাপ শিরোপার স্বাদ এনে দেন অধিনায়ক ধোনি। ৭৯ বলে ৯১ রানের ম্যাচসেরা ইনিংস খেলেছিলেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপের সময় শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী ছিলেন আলুথামাগে। নিউজ ফাস্টকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, দেশের সুনাম নষ্ট হয় এমনকিছুই তিনি বলতে চান না। তবে ম্যাচ ফিক্সিং হয়েছে দাবি করে তার মত, লঙ্কান ক্রিকেটাররা যে অবস্থায় ছিল সেখানে ম্যাচ জেতা অবশ্যই উচিৎ ছিল নিজেদের দলের।

বিজ্ঞাপন

‘আমি ক্রিকেটারদের সঙ্গে যুক্ত ছিলাম না। তবে অবশ্যই কেউ না কেউ ম্যাচ ফিক্সিংয়ে জড়িত ছিলই।’

২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালকে ঘিরে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ এটাই প্রথম নয়। ২০১৭ সালে শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক ও মন্ত্রী অর্জুনা রানাতুঙ্গা ফাইনালে ফিক্সিংয়ের অভিযোগ তুলেছিলেন। ধারাভাষ্যকার হিসেবে ফাইনালে উপস্থিত ছিলেন রানাতুঙ্গাও। তার অভিযোগের পর সন্দেহকৃত ম্যাচটি নিয়ে তদন্তের ইচ্ছা পোষণ করেছিলেন তখনকার ক্রীড়ামন্ত্রী দায়াসিড়ি জয়াসেকেরা।

আলুথামাগের দাবি, ম্যাচের দিন কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটারের আচরণ ছিল সন্দেহজনক। একজন সিনিয়র ক্রিকেটার ড্রেসিংরুমে বসে সেদিন ৫০টিরও বেশি সিগারেট ধূমপান করেছিল বলে জানাচ্ছেন তিনি।

ম্যাচ শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অধিনায়কের পদত্যাগ সন্দেহকে গাড় করেছে বলেও অভিযোগ সাবেক এ মন্ত্রীর। উল্লেখ্য, সেই ম্যাচে লঙ্কানদের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন কিংবদন্তি কুমার সাঙ্গাকারা। উপযুক্ত তদন্ত হলেই প্রকৃত সত্য বের হয়ে আসবে বলেই মত আলুথামাগের।