চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পাকিস্তানে দু’টি কয়লা খনিতে ধস, বহু হতাহত

পাকিস্তানে বালুচিস্তানে কোয়েটায় দু’টি কয়লা খনি ধসে পড়ার ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৮ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছে কমপক্ষে ৯ জন।

অনেকেই এখনো খনির ভেতর আটকা পড়ে আছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, কোয়েটা থেকে ৪৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত মারওয়ারের পীর ইসমাইলে শনিবার দুপুরের দিকে একটি কয়লা খনিতে ভয়াবহ গ্যাস বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বিস্ফোরণে খনির ভেতর আটকা পড়ে ১৬ খনন শ্রমিক।

টানা কয়েক ঘণ্টার উদ্ধার অভিযান শেষে তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। কয়লা খনির ভেতরে আরও মৃতদেহ আছে কিনা, সে ব্যাপারে উদ্ধার অভিযান চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে দেশটির কর্মকর্তারা।

বিজ্ঞাপন

পাকিস্তানের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক পরিচালক আতাউল্লাহ খান জানিয়েছেন, মারওয়ারে অবস্থিত মূল খনির তিনটি শাখার ভেতর মাত্রাতিরিক্ত মিথেন গ্যাস জমে গিয়েছিল। সেগুলো এসে মূল খনিতে জমা হওয়ায় এক পর্যায়ে বিস্ফোরণ ঘটে।

বিস্ফোরণে খনির ভেতরের দেয়াল ধসে পড়লে বের হওয়ার রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়।পাকিস্তান-কয়লা খনি ধসে নিহত

দ্বিতীয় খনি ধসের ঘটনাটি ঘটে কোয়েটার ৬০ কিলোমিটার পূর্বে ভূমিধসের কারণে। পাকিস্তান খনি উন্নয়ন কর্পোরেশনের ওই খনির ভেতর আটকা পড়ে ৯ জন। তাদের মধ্যে বিষাক্ত গ্যাসে নিঃশ্বাস নেয়ার কারণে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

দু’টি মৃতদেহ আর দু’জন আহত শ্রমিককে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে জানিয়ে পুলিশ বলেছে, আরও অন্তত ৫ জন আটকা পড়ে আছে ওই খনির ভেতর।

পাকিস্তানের বালুচিস্তান প্রদেশ খনিজ সম্পদে সমৃদ্ধ হলেও এর দুর্বল নিরাপত্তার বেশ কিছু খারাপ রেকর্ড রয়েছে। ২০১১ সালে বালুচিস্তানে একই ঘটনায় প্রাণ হারায় প্রায় ৪০ জন শ্রমিক।

বিজ্ঞাপন