চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পাকিস্তানের সামনে টাইগারদের রেকর্ড সংগ্রহ

প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩২৯ রান সংগ্রহ করেছে টাইগারেরা। তামিম-মুশফিকের জোড়া শতরানে এই রেকর্ড সংগ্রহ। যেকোনো ম্যাচে বাংলাদেশের দু’জন ব্যাটসম্যানের শতরান করার ঘটনা এই প্রথম।

শতরান পূর্ণ করে আউট হওয়ার আগে দলের ভিত গড়ে দেন মুশফিকুর রহিম ও তামিম ইকবাল। ৪৪ ওভারে তিনি শতরানের মাইল ফলক স্পর্শ করার পরে ৪৭ ওভারে মুশফিক আউট হন। এর আগে রানের খরা কাটিয়ে শতরান পূর্ণ করার পরে তামিম ইকবাল দলীয় ৪১ ওভারে আউটওয়াহাব রিয়াজের বলে ক্যাচ আউট হন। ওয়াহাব রিয়াজ ৪ উইকেট সংগ্রহ করেন।

মুশফিক আউট হলেও সাব্বিরকে নিয়ে সাকিব আল হাসান মাঠে লড়েছেন। সাব্বির ৭ বলে ১৫ রান ও সাকিব ২৭ বলে ৩১ রান করে আউট হন।

উদ্বোধনী জুটির সৌম্যকে হারিয়ে তামিমকে সঙ্গ দিতে মাঠে নেমেছিলেন গত বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সফলতম ব্যাটসম্যান মাহমুদুল্লাহ। তবে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি তিনি।  ৩৩ ওভার খেলা শেষে ২ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১৪০ রান।

বাংলাদেশের আগ্রাসি সূচনার লাগাম টেনে ধরেন সাইদ আজমল। চড়াও হয়ে খেলতে থাকা তামিমও তার কৃপন বোলিংয়ের সামনে অত্যন্ত সাবধানে খেলেছেন। শেষ পর্যন্ত আজমল তার বোলিং এর ধার ধরে রাখতে পারেননি। নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরে প্রথম ম্যাচেই তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বাজে খেলা ( ১০ ওভারে ৭৪ রান) খেলেছেন।

দলীয় ৪৮ রানের মাথায় রান আউটের শিকার হন সৌম্য সরকার। ওয়াহাব রিয়াজের বলে তামিমের ব্যাটে লেগে স্ট্যাম্পের কাছে রেখেই চরম ঝুঁকি নিয়ে রান নেয়ার চেষ্টার খেসারত দিতে হয়। স্ট্যাম্প ভাঙ্গেন ওয়াহাব রিয়াজ।

উদ্বোধনী জুটিতে টাইগারদের শুভ সূচনা এনে দিয়েছিলেন তামিম ইকবাল এবং সৌম্য সরকার।

দর্শকদের কাছে নিজের অতীতের আগ্রাসী রূপ নিয়েই হাজির হয়েছিলেন তামিম। একের পর এক দৃষ্টিনন্দন শটে যেনো তার অতীতের শংকাহীন মারকুটে রূপকেই মনে করিয়ে দিয়েছেন।

পাকিস্তানের বোলিং আক্রমণে এরই মধ্যে রাহাত আলীর পরিবর্তে বোলিং এ ছিলেন বিশ্বকাপে গতির ঝড় তোলা ওয়াহাব রিয়াজ। বোলিং একশনের জন্য বিতর্কের মুখে পরা সাইদ আজমল বৈধতার প্রমাণ দিয়ে আজই প্রথম আন্তজাতিক ম্যাচ খেলেছেন।

পাকিস্তানের পক্ষে বোলিং আক্রমণের নেতৃত্ব দিয়েছেন পেস বোলার জুনায়েদ খান। অপরপ্রান্তে আরেক পেস বোলার রাহত আলী।

মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম একদিনের ম্যাচে আজ মুখোমুখি বাংলাদেশ ও পাকিস্তান। এর আগে প্রস্তুতি ম্যাচে টাইগারদের দ্বিতীয় সারির দলের সাথে পাকিস্তানের পরাজয়ে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে রয়েছে বাংলাদেশ।

তবে এই ম্যাচে ওয়ানডে অভিষেক স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে না রনি তালুকদারের। তাকে বাদ দিয়েই একাদশ সাজিয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে আরেক ব্যাটসম্যান মমিনুল হককেও পাচ্ছে না টাইগাররা।

আইসিসি’র নিষেধাজ্ঞার কারণে এই ম্যাচে নামতে পারছেন না বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তার জায়গায় আজ বাংলাদেশ দলের নেতৃত্বে আছেন সাকিব আল হাসান।

২০১২ ও ২০১৪ এশিয়া কাপে অল্পের জন্য জয় হাতছাড়া হলেও ফতুল্লায় অনুশীল ম্যাচে বিসিবি একাদশের জয় আত্মবিশ্বাস দিচ্ছে জাতীয় দলকে। ট্রফি উন্মোচনের দিন সাকিব বলেছেন, সিরিজ জয়ের টার্গেট নিয়ে তারা আগেও খেলেছেন, এবারও তাই খেলবেন।

দীর্ঘদিন পর মিজবাহ-উল হক ও শহিদ আফ্রিদিকে ছাড়া ওয়ানডে ম্যাচে মাঠে নামছে পাকিস্তান।  তবে আট মাস পর স্পিনার সাঈদ আজমালের প্রত্যাবর্তনের সঙ্গে একঝাঁক তরুণ প্রতিভার উপস্থিতিতে সাফল্যের স্বপ্ন দেখছেন মাত্র ১৪ ওয়ানডে খেলা অধিনায়ক আজহার আলি। তিনি পাকিস্তানের হয়ে শেষ ওয়ানডে খেলেছেন ২০১৩’র জানুয়ারিতে। দলে অভিজ্ঞ বলতে আছেন মোহাম্মদ হাফিজ ও আজমল।

এ পর্যন্ত ৩২টি একদিনের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ পাকিস্তান। ৩১টিতেই জিতেছে পাকিস্তান।

বাংলাদেশ একাদশ
তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, মাহমুদুল্লাহ, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন, আবুল হাসান, আরাফাত সানী, তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেন।
পাকিস্তান একাদশ
মোহাম্মদ হাফিজ, আজহার আলী, হারিস সোহেল, সাদ নাসিম, মোহাম্মদ রিজওয়ান, ফাওয়াদ আলম, সরফরাজ আহমেদ, ওয়াহাব রিয়াজ, জুনায়েদ খান, সাইদ আজমল, রাহাত আলী।