চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পাকিস্তানি বিজ্ঞাপন নিয়ে ‍সমালোচনার ঝড়

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের উত্তাপে অভিনন্দনও

মাত্র ৩৩ সেকেন্ডের একটা বিজ্ঞাপনী ক্লিপিং। যা প্রকাশ পাওয়া মাত্রই বিতর্ক। দুই দেশে নেট দুনিয়ায় তা মুহূর্তে ভাইরাল এবং, যে ক্লিপিংয়ের হাত ধরে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আগে যোগ হয়েছেন অভিনন্দন বর্তমানও। পাকিস্তানের জাজ টেলিভিশন সংস্থা একটি বিজ্ঞাপন করেছে ভারতীয় উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্ধমানের মতো দেখতে এক মডেলকে নিয়ে।

কী রয়েছে বিজ্ঞাপনটিতে?
পুলওয়ামার ঘটনার পর পাকিস্তানের বালাকোটে জঙ্গিঘাঁটিতে হামলা চালানো হয় বলে ভারতীয় সেনাবাহিনী দাবি করেছিল। তার পরের দিন ভারতীয় আকাশসীমা লঙ্ঘন করে পাকিস্তানি সেনা বিমান। তাদের তাড়া করে ভারতীয় বিমান বাহিনী। তারপরই পাকিস্তান বিমান বাহিনীর গুলিতে সেদেশের মাটিতে বিমান ভেঙে পড়ার পর ধরা পড়েছিলেন ভারতের বিমান বাহিনীর উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। তিনি পাকিস্তানের সেনার হাতে আটক হন।

বিজ্ঞাপন

১৬ জুন ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আগে পাকিস্তানের একটি টিভি চ্যানেল একটি বিজ্ঞাপন করেছে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে। সেখানে দেখা যায়, অভিনন্দনের মতো দেখতে এক মডেল, ওই রকম গোঁফ, নীল রঙের একটি টি-শার্ট পরে বসে আছেন, যা ভারতীয় দলের জার্সির রং। তাকে প্রশ্ন করা হচ্ছে, ঠিক যেভাবে অভিনন্দনকে প্রশ্ন করা হচ্ছিল এবং যে ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেয়া হয়েছিল।

অভিনন্দনকে কিছু প্রশ্ন করেছিলেন পাকিস্তানের কোনো এক সেনা কর্মকর্তা। কিছু উত্তর তিনি দেন। কিছু প্রশ্নের উত্তরে তিনি সবিনয়ে বলেন, ‘আই অ্যাম সরি স্যার, আই এম নট সাপোজড টু টেল ইউ…।’

বিজ্ঞাপনে অভিনন্দনের মতো দেখতে মডেলকে দেখা যায়, হাতে চায়ের কাপ। তিনি চা খাচ্ছেন। তাকে প্রশ্ন করা হয়, টস জিতে গেলে কী করবে? তিনি উত্তর দেন, ‘আই অ্যাম সরি স্যার, আই এম নট সাপোজড টু টেল ইউ…।’

এরপর তাকে প্রশ্ন করা হয়, কোন এগারো জন দলে থাকবে?

তিনি উত্তর দেন, ‘আই অ্যাম সরি স্যার, আই এম নট সাপোজড টু টেল ইউ…।’ ঠিক সেভাবে অভিনন্দন যেভাবে অনেক প্রশ্নের উত্তর দেননি।

বিজ্ঞাপন

এরপর এক সময় অভিনন্দনকে প্রশ্ন করা হয়, চা কেমন? তিনি উত্তর দিয়েছিলেন, দুর্দান্ত।

এখানেও অনুরূপ প্রশ্ন করা হয়। অভিনন্দনের মতো দেখতে মডেলও একই উত্তর দেন। এবার তাকে বলা হয় চলে যেতে। তিনি বলেন, ‘ওকে স্যার।’ চায়ের কাপ নিয়ে তিনি হাঁটা দেন। এমন সময় তাকে বলা হয়, ‘এক সেকেন্ড, থামো। কাপ কোথায় নিয়ে যাচ্ছ?’ তিনি ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে যান এবং তার হাত থেকে কাপটা কেড়ে নেয়া হয়।

এখানেই টিভির পর্দায় ফুটে ওঠে #লেটসব্রিংদ্যকাপহোম এবং, ওই পাকিস্তানি চ্যানেলে বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের সরাসরি সম্প্রচারের বিবরণ।

অনেকে যেমন এই বিজ্ঞাপনের মধ্যে অভিনবত্ব খুঁজে পাচ্ছেন, তেমন অনেকে খেলার সঙ্গে দুই দেশের রাজনৈতিক শৈত্যের প্রসঙ্গ আনার জন্য সমালোচনাও করেছেন।

টুইটারে একজন যেমন বলেছেন, এই প্রমো ভিডিও অবশ্যই একটা খারাপ স্বাদের। এটি হাস্যকর এবং বিদ্রূপ তৈরি করেছে, যা পরিষ্কারভাবে পরিশীলিত কাজের অভাব হতে বানানো।

আরেকজন বলেছেন, বিশ্বকাপ ম্যাচের আগে আমাদের নায়ক অভিনন্দনকে নিয়ে উপহাসের জন্য পাকিস্তানকে ধিক্কার। আমাদের প্রতিশোধ নিতে হবে!

ঋতায়ন বসু নামের একজনের মন্তব্য, এটা লজ্জাজনক। দয়া করে এটা শুধুই একটি ক্রিকেট ম্যাচ হতে দিন। এটা বিদ্রূপের সব সীমা অতিক্রম করে গেছে।

পাকিস্তানি চ্যানেলের এই বিজ্ঞাপনের আগেই অবশ্য ভারতের স্টার স্পোর্টস একটি বিজ্ঞাপন প্রকাশ করে, যেখানে ভারতীয় দলের শ্রেষ্ঠত্বের নানা দিক তুলে ধরা হয়। ওই বিজ্ঞাপন নিয়েও মিশ্র পর্যালোচনা দেখা যায়। অনেকেই সেটাকে খারাপ প্রবৃত্তি বলে দাবি করেন।