চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পরিস্থিতির উন্নতি হলে নভেম্বরে এসএসসি, ডিসেম্বরে এইচএসসি

জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ থাকা গুরুত্বপূর্ণ দুই পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, পরিস্থিতির উন্নতি হলে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে আগামী নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে এসএসসি ও সমমান এবং ডিসেম্বরে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা নেওয়া হবে।

আর পরিস্থিতির কারণে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না হলে পূর্ববর্তী পরীক্ষা যেমন: পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি), অষ্টম শ্রেণির জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) এবং এসএসসি পরীক্ষায় পাওয়া ফলাফলের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার সকালে এক ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে এসব একথা জানান তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলে স্বাস্থবিধি মেনে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে ও পরীক্ষার সময় কমিয়ে গ্রুপভিত্তিক তিনটি নৈর্ব্যক্তিক বিষয়ে নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে এসএসসি ও সমমান এবং ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা নেওয়া হবে।’

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ বাড়তে শুরু করলে গত বছরের ১৭ মার্চ দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়।

২০২০ সালের মার্চে সংক্রমণ দেখা দেওয়ার ঠিক আগেই এসএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়েছিল। কিন্তু এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা আটকে যান।

ছুটির সময় কোনো পাবলিক পরীক্ষা হয়নি। গত বছরের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়ন ফল প্রকাশ করা হয় তাদের এসএসসি ও জেএসসির ফলের গড় করে। কিন্তু চলতি বছরে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এরই মধ্যে একাধিকবার স্কুল ও কলেজ খোলার দিনক্ষণ নির্ধারণ এবং প্রস্তুতি নেওয়ার কথা বলা হলেও মহামারি পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় তা সম্ভব হয়নি।

সর্বশেষ ৩০ জুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার কথা থাকলেও তা পিছিয়ে ৩১ জুলাই পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন