চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পদার্থবিজ্ঞানের নোবেল তিন বিজ্ঞানীর

পদার্থ বিজ্ঞানে বিশেষ অবদানের জন্য এ বছর তিনজন বিজ্ঞানীকে নোবেল পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে।

ব্ল্যাকহোল বা কৃষ্ণগহ্বর নিয়ে গবেষণা করে এই সম্মাননা পেয়েছেন তারা।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার রয়েল সুইডিশ অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস এই তিন বিজয়ীর নাম ঘোষণা করে।

বিজ্ঞাপন

তারা হলেন ব্রিটিশ পদার্থবিজ্ঞানী রজার পেনরোজ, জার্মান জ্যোতির্বিজ্ঞানী রেইনহার্ড গেনজেল ও মার্কিন জ্যোতির্বিদ আন্দ্রে গেজ।

এই তিনজনের মধ্যে দু’ভাগে ভাগ করা হয়েছে এবারের নোবেল পুরস্কার।

সাধারণ আপেক্ষিকতা তত্ত্বের ভবিষ্যদ্বাণী বলিষ্ঠকরণে ব্যাকহোল অবিষ্কারের জন্য অর্ধেক অংশ পেয়েছেন রজার পেনরোস।

বিজ্ঞাপন

‘আমাদের ছায়াপথের কেন্দ্রস্থলে একটি সুপারম্যাসিভ কমপ্যাক্ট অবজেক্ট আবিষ্কারের জন্য’ যৌথভাবে বাকি অর্ধেক পেয়েছেন গেঞ্জেল ও গেজ।

এ বছরের লরিয়েটদের আবিষ্কারগুলো কমপ্যাক্ট ও সুপারম্যাসিভ অবজেক্টগুলো নিয়ে গবেষণায় এক নতুন দিগন্তের উন্মোচন করেছে,  বলেন পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল কমিটির চেয়ারম্যান ডেভিড হ্যাভিল্যান্ড।

একই বিষয় নিয়ে কাজ করে একাধিক বিজ্ঞানী নোবেল পাওয়ার ঘটনা সাধারণ একটি ব্যাপার। গত বছরও তিনজন বিজ্ঞানী পদার্থে নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন।

এর আগে হেপাটাইটিস সি ভাইরাস আবিষ্কার করে চলতি বছর চিকিৎসাশাস্ত্রে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন তিনজন বিজ্ঞানী।

তারা হলেন- হার্ভি জে. অল্টার, মাইকেল হিউটন এবং চার্লস এম. রাইস। সোমবার নোবেল কমিটি এই তিন বিজয়ীর নাম ঘোষণা করেন। বিজয়ী এই তিনজনের মধ্যে দুই মার্কিন ও একজন ব্রিটিশ বিজ্ঞানী।

নোবেল পুরস্কার হিসেবে বিজয়ী একটি গোল্ড মেডেল ও ১০ মিলিয়ন সুইডিশ ক্রোনার পান। ১২৪ বছর আগে আলফ্রেড নোবেল যে তহবিল তৈরি করেছিলেন তা থেকে নোবেল জয়ীদের পুরস্কারের অর্থ দেয়া হয়।