চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পণ্যের বহুমুখীকরণ ও রপ্তানি বাড়াতে পদক্ষেপের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

দেশে উৎপাদিত পণ্যের বহুমুখীকরণ ও রপ্তানি বাড়াতে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের রপ্তানি শিল্পের সংখ্যাও বেড়েছে। ভবিষ্যতে আরও বাড়াতে হবে।  

বৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে  বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবেশন সেন্টার (বিবিসি এফইসি) উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘আমি আমাদের ব্যবসায় সম্প্রদায়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো তাদের অনুরোধ করবো। তারাও যেন পণ্যের বহুমুখীকরণ করা, রপ্তানি গুরুত্ব দেওয়া এবং দেশের পণ্য কোন কোন দেশে রপ্তানি করতে পারে তার লক্ষ্যে পণ্য উৎপাদনে কাজ করে।’

বিজ্ঞাপন

‘‘আমরা পোশাক শিল্পে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছি। কারণ এখানে আমাদের অনেক নারী শ্রমিক কাজ করে। এর পাশাপাশি আমরা আমাদের অন্যান্য শিল্পেও সমাভাবে গুরুত্ব দিয়েছি। ১০০ টি শিল্প অঞ্চল যেটা আমরা তৈরি করছি। সেখানে দেশি-বিদেশি সবাই বিনিয়োগ করতে পারবে সেই সুযোগ আমরা করে দিচ্ছি। করোনাকালীন সময়ে সবই স্থবির হয়ে গেছে।’’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সীমিত উপায়ে ডিজিটেল মেলার আয়োজন হলেও বাণিজ্য মেলা আমরা করতে পারিনি। রাপ্তানি মেলা জন্য একটা জায়গা দেওয়ার  সিদ্ধান্ত দিয়েছি।’

‘‘মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমে যাওয়ায় ২০২২ সালের ২৬তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা রাজধানীর পূর্বাচলে স্থাপিত বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশীপ এক্সিবিশন সেন্টারে আয়োজনের অনুমোদন দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।’’

বর্তমানে করোনা সংক্রমণ কমে আসায় আগামী বছরের ১ জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে শুরু হবে বাণিজ্য মেলার আয়োজন।

বিজ্ঞাপন