চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিজস্ব ট্রাইব্যুনাল তদন্ত করবে: যুবলীগ চেয়ারম্যান

নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে তা আওয়ামী যুবলীগের নিজস্ব ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে তদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছে যুবলীগ। তার জন্য যুবলীগ-নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে যাবতীয় অভিযোগ তথ্য-প্রমাণসহ চেয়ারম্যান বরাবর জমা দিতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে যুবলীগের চেয়ারম্যান মো: ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন: সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে আলোচনার বরাত দিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ সম্পর্কে কিছু বক্তব্য প্রকাশিত হচ্ছে। যুবলীগ এসব সমালোচনা অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে। যুবলীগ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নতাড়িত, শহীদ শেখ ফজলুল হক মণি প্রতিষ্ঠিত, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার বিশ্বশান্তির দর্শন ‘জনগণের ক্ষতায়ন’ এর আলোকে পরিচালিত একটি যুব সংগঠন। এই যুব সংগঠনটির প্রধান লক্ষ্যই হলো বাংলাদেশের তরুণ যুবকদের যুবমানস গঠন করা। যুবসমাজ যেন মাদকাসক্ত, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ থেকে দূরে থাকে সে লক্ষ্যে যুবমানস গঠনের জন্য কাজ করে যুবলীগ। গত এক দশক ধরে যুবলীগ তার কার্যক্রমের মাধ্যমে যুবসমাজের মেধা-মনন চর্চার বিকাশের জন্য কাজ করছে। সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে সমস্ত তথ্য ও বক্তব্য প্রকাশিত হয়েছে সেগুলোকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করতে চায়  যুবলীগ।

যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন: একই সঙ্গে সংগঠনের ভেতর কেউ যেন নৈতিকস্খলনজনিত কোন অপরাধ না করে সেজন্য শূন্যসহিষ্ণুতা নীতি নিয়ে চলে এ সংগঠন। এ জন্য যুবলীগের নিজস্ব ট্রাইব্যুনাল রয়েছে। এ ট্রাইব্যুনালে যুবলীগের কোনো নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ এলে তা তদন্ত ও অনুসন্ধান করা হয়। দোষী নেতা-কর্মী তিনি সেই হোন না কেন, তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

যুবলীগের কোনো নেতা বা কোনো শাখার বিরুদ্ধে যদি কারও অভিযোগ থাকে, তাহলে তা  যুবলীগের চেয়ারম্যান বরাবর পাঠানোর অনুরোধ করেন তিনি। সেক্ষেত্রে অভিযোগের সঙ্গে যদি কোনো কাগজপত্র, দলিল বা তথ্যপ্রমাণ থাকে সেটাও চিঠির সঙ্গে হস্তান্তর করতে বলা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, সমস্ত তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে যুবলীগের কোনো নেতা বা শাখার  বিরুদ্ধে ন্যূনতম অভিযোগেরও যদি সত্যতা পাওয়া যায়, তাহলে তাৎক্ষণিকভাবে ওই ব্যক্তি ও কমিটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। যদি এই অভিযোগ ফৌজদারি অপরাধের পর্যায়ে পরে তাহলে সংশ্লিষ্ট থানায় তাৎক্ষনিকভাবে অভিযোগটি প্রেরণ করবে এবং অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ওই থানাকে অনুরোধ করবে।

ওমর ফারুক বলেন: যুবলীগ রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি যুববান্ধব সংগঠন হিসেবে নিজেদেরকে গড়ে তুলতে চায়। কারণ, আগামী দিনের জন্য যে যুবসমাজ তৈরি করতে হবে। সেই যুবসমাজকে হতে হবে উদ্ভাবনী মেধাসম্পন্ন। তাদের মধ্যে মেধা এবং মননের চর্চা থাকতে হবে। একই সঙ্গে তাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে নিজেদের গড়ে তুলতে হবে। সে লক্ষ্যেই কাজ করছে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ। কাজেই কোনো অভিযোগের ব্যাপারেই  যুবলীগ উদাসীন থাকতে পারে না। এটা বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের নীতি ও আদর্শের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। এজন্যেই আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি।

শেয়ার করুন: