চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নেইমারকে নির্দোষ বললেন মার্শেই ডিফেন্ডার

বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগ থেকে বেঁচে গেছেন পিএসজি তারকা নেইমার ও মার্শেইয়ের আলভারো গঞ্জালেজ। নেইমারের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিলো তিনি আলভারো ও মার্শেইয়ের জাপানি ডিফেন্ডার হিরোকি সাকাইকে উদ্দেশ্য করে বর্ণ বৈষম্যমূলক গালি ছুঁড়েছেন। সেই অভিযোগের প্রায় একমাস পর মুখ খুললেন সাকাই, জানালেন নেইমার মোটেও তার সঙ্গে এমন আচরণ করেননি।

গত মাসে মার্শেইয়ের বিপক্ষে ম্যাচের পর নেইমার অভিযোগ তোলেন যে তাকে ‘বানর’ বলে গালি দিয়েছেন আলভারো। ক্ষোভ সামলাতে না পেরে স্প্যানিশ ডিফেন্ডারের মাথায় চড় মেরেছিলেন পিএসজি তারকা। এ কারণে ম্যাচেই লাল কার্ড দেখানো হয় তাকে, দেওয়া হয় দুই ম্যাচ নিষেধাজ্ঞা।

বিজ্ঞাপন

নেইমারের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ এনেছিলো মার্শেইয়েও। ফ্রেঞ্চ ক্লাবটির অভিযোগ ম্যাচে আলভারো ও টানেলে যাওয়ার পথে তাদের জাপানিজ ডিফেন্ডার সাকাইকে ‘চাইনিজ মল’ বলে গালি দিয়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান তারকা। অভিযোগ প্রমাণিত হলে ১০ থেকে ২০ ম্যাচ নিষিদ্ধ হওয়ার শঙ্কায় ছিলেন নেইমার।

বিজ্ঞাপন

তবে বুধবার বিবৃতিতে ডিসিপ্লিনারী কমিটি জানায়, ‘নেইমারকে আলভারো কিংবা আলভারোর উদ্দেশে নেইমার বর্ণবিদ্বেষমূলক কোনো মন্তব্য করেছিলেন কিনা সে বিষয়ে শক্ত কোনো প্রমাণ তারা খুঁজে পাননি, যে কারণে দুজনকেই নির্দোষ ঘোষণা করা হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

নেইমার-আলভারো নির্দোষ প্রমাণিত হবার খবর শোনার পরই মুখ খুলেছেন সাকাই। ইনস্টাগ্রামে পোস্ট দিয়ে নেইমারের বেঁচে যাওয়ার খবরে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন এই ডিফেন্ডার।

‘ গত দুই সপ্তাহ খুব কঠিন ছিলো আমার জন্য। তবে আমি খুশি যে দুই খেলোয়াড়ের কোনো শাস্তি হয়নি।’

‘ কেউ আমার সঙ্গে বৈষম্যমূলক আচরণ করেনি। ম্যাচে আমরা একটু আবেগি হয়ে পড়েছিলাম শুধু।’

নির্দোষ প্রমাণিত হবার পর আলভারোকে নিয়ে বিবৃতি দিয়েছে মার্শেই। তাতে বলা হয়েছে, ‘ আলভারো গঞ্জালেজ মোটেও বৈষম্যকারী নয়। তার বিরুদ্ধে যত অভিযোগ সব অবাস্তব, অনৈতিক। অলিম্পিক মার্শেই বর্ণবিদ্বেষের বিপক্ষে আছে এবং থাকবেও।’