চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নুসরাতের মামলাটি যেন হারিয়ে না যায়: হাইকোর্ট

সাগর-রুনির এবং মিতু ও তনুর মত ফেনীর অগ্নিদগ্ধ মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাতের মামলাটি যেন হারিয়ে না যায় এ মন্তব্য করে হাইকোর্ট বলেছেন: নুসরাতের মামলার তদন্তে গাফিলতি হলে আমরা হস্তক্ষেপ করব।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সৈয়দ সাইয়্যেদুল হক সুমন বিভিন্ন দৈনিকে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন বৃহস্পতিবার আদালতের সামনে তুল ধরে। ঐ ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্তের আবেদন জানালে হাইকোর্ট একথা বলে।

এসময় আদালত বলেন: আমরা যতটুকু জানি এ ঘটনাটি পিবিআইকে ট্রান্সফার করা হয়েছে তদন্তের জন্য। এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজে এটা তদারকি করছেন। আমরা এ ঘটনায় সমভাবে ব্যথিত। আর আমরা কোনোভাবেই চাই না সাগর-রুনির মত, মিতুর মত, তনুর মত যেন এই মামলাটা না হারিয়ে যায়।’

একপর্যায়ে আদালত আইনজীবী সৈয়দ সাইয়্যেদুল হক সুমনকে উদ্দেশ্য করে বলেন:
‘আপনারা খেয়াল রাখেন। আমরাও খেয়াল রাখছি। তদন্তের কোনো জায়গায় কোনো কারণে যদি যদি মনে হয় গাফিলতি হচ্ছে তাহলে আপনারা চলে আসবেন, আমরা ইন্টারফেয়ার (হস্তক্ষেপ) করব।’

এ বিষয়ে আইনজীবী সৈয়দ সাইয়্যেদুল হক সুমন চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন: ‘নুসরাতের ঘটনাটা একটা হৃদয় বিদারক ঘটনা। রাতে আমি এবং আমার পরিবারের লোকজন ঘুমাতে পারিনি। সকাল বেলা মাননীয় বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চের বিষটি নিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে আদালত কোন আদেশ না দিয়ে এসব কথা বলেন।’

চিকিৎসাধীন নুসরাত

গত বুধবার রাত পৌনে ১০টার দিকে ঢাকা মে‌ডি‌কেল ক‌লে‌জে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নুসরাত জাহান রাফির মৃত্যু হয়।

অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলার মাধ্যমে যৌন হয়রানির শিকার হওয়ার পর এ বিষয়ে অভিযোগ করায় গত শনিবার আলিম পরীক্ষা কেন্দ্রে বোরকা পরা চারজন দুর্বৃত্ত নুসরাত জাহান রাফির গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়।

দুর্বৃত্তের আগুনে ঝলসে যাওয়া নুসরাতের অবস্থা অবনতি হওয়ায় সোমবার তাকে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটের লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়।

ফেনী-শিক্ষার্থী-যৌন হয়রানি-মাদরাসার অধ্যক্ষ
অভিযুক্ত শিক্ষক সিরাজউদ্দৌলা

পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার চিকিৎসার দায়িত্ব নেন। তাকে সিঙ্গাপুর নেয়ার সিন্ধান্ত নেয়া হয়। কিন্তু তার শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে তাকে এখনই সিঙ্গাপুরে নেয়া হচ্ছে না বলে জানান ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটের চিকিৎসকরা।

এরপর মঙ্গলবার দুপুরে তার অস্ত্রোপচার হ‌য়। আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত নুসরাতের ফুসফুস স‌ক্রিয় করতেই এই অস্ত্রোপচার করা হ‌য় ব‌লে চি‌কিৎস‌কেরা জানান। এবং সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকদের পরামর্শে এই অস্ত্রোপচার করা হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সব জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে মারা যান নুসরাত।