চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নিষেধাজ্ঞা না মেনে ইটালির জলসীমায় অভিবাসীদের জাহাজ

ইটালি সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ভূমধ্যসাগর থেকে উদ্ধার করা ৪২ জন অভিবাসীকে নিয়ে দেশটির জলসীমায় প্রবেশ করেছে উদ্ধারকারী জাহাজ সি ওয়াচ।

বিবিসি জানিয়েছে, জার্মানির মালিকানাধীন ও নেদারল্যান্ডসের পতাকাবাহী এ জাহাজের ক্যাপ্টেন কারোলা রাকেটে ইটালির ল্যাম্পেডুসা দ্বীপে নোঙর করার সিদ্ধান্ত নেন।

বিজ্ঞাপন

সংস্থাটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, জাহাজের ভেতরকার পরিস্থিতি ভয়াবহ হওয়ার কারণেই ক্যাপ্টেন ইটালির জলসীমায় প্রবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

রাকেটে বলেন, নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তার মনে হয়েছে, এমন জরুরি অবস্থায় সমুদ্র আইন তাকে ইটালিতে নোঙর করার অনুমতি দেয়। ‘অনেক হয়েছে। আমরা ঢুকছি। উস্কানি দিতে না, জরুরি পরিস্থিতিতে দায়িত্ব হিসেবে,’ ক্যাপ্টেনের বরাতে টুইট করেছে সি ওয়াচ।

এ ঘটনায় আইন অমান্য করার কারণে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানোর জন্য প্রস্তুতির কথা জানিয়েছেন ইটালির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও সালভিনি। তিনি বলেছেন, জাহাজটির ইটালিতে নোঙর করার অনুমতি নেই।

বিজ্ঞাপন

গত ১২ জুন লিবিয়া উপকূল থেকে ৫৩ জন অভিবাসীকে উদ্ধার করে সি ওয়াচ। এতদিন জাহাজটি অভিবাসীদের নিয়ে আন্তর্জাতিক জলসীমায় অবস্থান করছিল। জরুরি স্বাস্থ্যগত কারণে এর আগে ১১ জন অভিবাসীকে ইটালির কোস্টগার্ড জাহাজ থেকে নামিয়ে নেয়।

বাকি ৪২ জন অভিবাসীকে নিয়ে সি ওয়াচ বুধবার ইটালি জলসীমায় প্রবেশ করে। এর সাথে সাথেই ইটালি কোস্টগার্ডকে পাঠানো হয় জাহাজটিকে থামানোর জন্য।

সালভিনি এরপর এক বিবৃতিতে সি ওয়াচকে ‘আইন ভঙ্গকারী জাহাজ’ হিসেবে অভিহিত করে জানিয়েছেন, রোমের পক্ষ থেকে ডাচ সরকারকে বলা হয়েছে এই অভিবাসীদের দায়িত্ব নিতে।

‘আমি একজনকেও জাহাজ থেকে নামতে দেবো না। আমাদের ধৈর্য শেষ হয়ে গেছে। নেদারল্যান্ডস এর জবাবদিহি করবে। যতক্ষণ না অ্যামস্টারডাম, বার্লিন বা ব্রাসেলসের পক্ষ থেকে তাদেরকে (অভিবাসী) নেয়ার কথা বলা হবে ততক্ষণ পর্যন্ত কেউ এই জাহাজ থেকে নামবে না। আমি বিষয়টি নিয়ে পুরোপুরি বিরক্ত,’ বলেন সালভিনি।

জুনে প্রণীত এক নির্দেশ অনুযায়ী ইটালির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে ক্ষমতা দেয়া হয়েছে, কোনো জাহাজকে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বা শৃঙ্খলার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ মনে করলে মন্ত্রণালয় একে দেশের অভ্যন্তরীণ জলসীমায় প্রবেশে বাধা দেওয়ার। এমনকি চাইলে জরিমানাও করতে পারে।