চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নিষেধাজ্ঞা না মেনে আরও একটি জাহাজ ইটালিতে

নিষেধাজ্ঞা না মেনে ইটালির ল্যাম্পেডুসা বন্দরে ৪১ জন অভিবাসন প্রত্যাশীসহ নোঙর করেছে আরও একটি সেচ্ছাসেবী সংস্থার উদ্ধার জাহাজ। কিন্তু বন্দরে পৌঁছানোর কয়েক ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত জাহাজ থেকে একজনকেও নামতে দেয়া হয়নি।

স্থানীয় সময় শনিবার দিনের বেলা দাতব্য সংস্থা মেডিটেরেনিয়া’র জাহাজ ‘অ্যালেক্স’ ইটালির বন্দরে নোঙর করার পর  রাত নামলেও জাহাজের যাত্রী ও ক্রু সবাইকেই জাহাজের ভেতরে অপেক্ষা করতে হচ্ছে। তাদের দিকে কড়া নজর রাখছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

মেডিটেরেনিয়া এক টুইটবার্তায় অভিযোগ করেছেন, জাহাজের ক্রুরা ‘অস্বাভাবিক অবাস্তব একটা পরিস্থিতির মধ্যে’ জীবনধারণ করছে। এভাবে চলতে দেয়াটা ‘অনর্থক নিষ্ঠুরতা’ বলেও মন্তব্য করা হয়েছে টুইটে।

মানবিক দিক বিবেচনায় ইটালি সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে দাতব্য সংস্থা মেডিটেরেনিয়া।

অ্যালেক্সের পক্ষ থেকে মুখপাত্র আলেস্যান্ড্রা স্কুরবা জানান, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ এবং অভিবাসন প্রত্যাশীদের প্রাণহানি থেকে বাঁচতে এমন সিদ্বান্ত নেয়া হয়েছে।

‘বেশ কয়েকজন প্রায় জ্ঞান হারানোর দশায়, টয়লেটগুলো কাজ করছে না। অবস্থা এতটাই খারাপ যে মনে হচ্ছে আমাদেরকে এখানে অপহরণ করে আটকে রাখা হয়েছে,’ বলেন তিনি, ‘এখনো জাহাজ থেকে নামার ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থাই নেয়া হচ্ছে না এবং কেউ জানে না কী হতে যাচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন

সমুদ্রে ভাসমান এসব অভিবাসন প্রত্যাশী লিবিয়া থেকে আসা।

ইটালির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও সালভিনি জানান, অভিবাসন প্রত্যাশীদের ঠেকাতে ইটালি বদ্ধপরিকর। অভিবাসন প্রত্যাশী ও অবৈধ অভিবাসী মোকাবেলায় সমুদ্রতীরে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ইটালি-অভিবাসী-জাহাজ
বন্দরে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে

একই রকম পরিস্থিতিতে গত ২৮ জুন আরেকটি অভিবাসী উদ্ধার জাহাজ ‘সি-ওয়াচ ৩’ ভূমধ্যসাগর থেকে উদ্ধার করা অর্ধশতাধিক আফ্রিকান অভিবাসীকে নিয়ে ল্যাম্পাডুসা বন্দরে নোঙর করে। নোঙর করার সাথে সাথেই জাহাজের ক্যাপ্টেন কারোলা রাকেটেকে গ্রেপ্তার করে ইটালি পুলিশ।

ইটালি কর্তৃপক্ষ জাহাজটিকে তাদের জলসীমায় প্রবেশ নিষিদ্ধ করলেও সেটি ২৮ জুন গভীরে রাতে ল্যাম্পেডুসা দ্বীপ বন্দরে নোঙর করে। আর তখনই জাহাজের ক্যাপ্টেনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বর্তমানে আয়লান কুর্দি নামে আরও একটি অভিবাসী উদ্ধার জাহাজ ল্যাম্পেডুসার ঠিক বাইরে ইটালিতে ঢোকার আশায় আন্তর্জাতিক জলসীমায় অপেক্ষা করে আছে। জার্মান দাতব্য এনজিও সি-আই পরিচালিত জাহাজটিতে ৬৫ জন অভিবাসন প্রত্যাসী আছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

জুনে প্রণীত এক নির্দেশ অনুযায়ী ইটালির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে ক্ষমতা দেয়া হয়েছে, কোনো জাহাজকে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বা শৃঙ্খলার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ মনে করলে মন্ত্রণালয় একে দেশের অভ্যন্তরীণ জলসীমায় প্রবেশে বাধা দেওয়ার। এমনকি চাইলে জরিমানাও করতে পারে।

Bellow Post-Green View