চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘নির্বাচনে সংখ্যালঘুর ওপর নির্যাতন সংস্কৃতির অবসান হওয়া উচিত’

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের নেতারা বলেছেন: নির্বাচন মানেই ধর্মীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর নির্যাতন এমন একটি সংস্কৃতি আমাদের দেশে চালু হয়ে আছে। এই সংস্কৃতির অবসান হওয়া উচিত।

বুধবার সন্ধ্যায় আগারগাঁওস্থ নির্বাচন কমিশন ভবনে এসে এমন মন্তব্য করেন পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মিলন কান্তি দত্ত।

তিনি বলেন, দেশে নির্বাচন আসলেই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপরে নির্যাতন নিপীড়ন ভয়-ভীতি প্রদর্শন নৈমিত্তিক হয়ে ওঠে পূর্বের মতো এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি ইতিমধ্যে ১৫ ডিসেম্বর ফেনী জেলার সোনাগাজী উপজেলার বাগধা ইউনিয়নের আলমপুর গ্রামের শিশিরের বাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

‘২১ শে ডিসেম্বর ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের সিঙ্গিয়া গ্রামে সাহাপাড়ার মোটা সাহা ঘোষের বাড়ির ছয়টি ঘর পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে এছাড়া ২৪ ডিসেম্বর শেষ রাতে একই নির্বাচনী এলাকায় আখানগর ইউনিয়নের মধ্য ঝাড়গাও গ্রামের যাত্রা বর্মনের বাড়ির তিনটি খড়ের ঘর ও একটি খড়ের গাদায় অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে।’

নেতৃবৃন্দ সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ রক্ষার্থে এবং ধর্মীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায় যাতে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে তাদের ভোটাধিকার নির্বিঘ্নে প্রয়োগ করতে পারে সে ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণে নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনুরোধ জানান।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জি, কাজল দেবনাথ, নির্মল রোজারিও এসময় উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন