চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নির্বাচনের সময় মিয়ানমারের নতুন অপকৌশল

বিশ্ববাসীর দৃষ্টি যখন গত মাসের ব্যর্থ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের দিকে, ঠিক সেসময় আরো সোয়া লাখ রোহিঙ্গা মিয়ানমার ছাড়ার চেষ্টা করছে।

মিয়ানমারের ক্যাম্প থেকে তাদের নিজ বাড়িতে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা করা হলে তারা দেশ ছেড়ে যাওয়ার জন্য নৌকা ভাড়া করছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে। এই খবর বাংলাদেশের জন্য উদ্বেগের।

ইতোমধ্যে রোহিঙ্গাদের কারণে বাংলাদেশ নানা সমস্যায় পড়তে শুরু করেছে। এত বিপুল জনগোষ্ঠীকে বাংলাদেশের মতো ছোট একটি দেশে দীর্ঘমেয়াদে আশ্রয় দেয়া স্বাভাবিকভাবেই অসম্ভব।

এরপরও রোহিঙ্গাদের ফেরত নেওয়ার বদলে মিয়ানমার নিজেদের অপকৌশল চালু রাখলে তা এই অঞ্চলের শান্তি বিনষ্টের কারণ হবে বলেই আমরা মনে করি।

দেশে এখন নির্বাচনের আমেজ চলছে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, মিয়ানমার এই সুযোগকে নিজেদের অপকৌশলের হাতিয়ার হিসেবে কাজে লাগাতে চাইছে। কিন্তু তাদের স্মরণ রাখা উচিত বাংলাদেশে এখনও একই সরকার বহাল রয়েছে।

একইসঙ্গে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নির্বাচনী কাজের পাশাপাশি রাষ্ট্রীয় এই গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুর দিকেও সমান নজর রাখবে বলে আমরা আশা করি। না হলে মিয়ানমার এমন ধৃষ্টতাপূর্ণ আচরণ অব্যাহত রাখবে।

আমরা শুরু থেকেই বলে আসছি, এই সমস্যা বাংলাদেশের নয়, মিয়ানমারের সৃষ্টি। সুতরাং সমস্যার সমাধান মিয়ানমারকেই করতে হবে। কিন্তু মিয়ানমারের আচরণে এমন কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। বরং উল্টো তারা আবারও সেখানে থাকা রোহিঙ্গাদের দেশছাড়া করার কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। এটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

আমরা মনে করি, এক্ষেত্রে বাংলাদেশকে আরও সতর্ক থাকতে হবে। নতুন করে যাতে আর কোনো রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না পারে এ বিষয়েও কঠোর হতে হবে। নির্বাচনের এই সময়ে যাতে মিয়ানমার বা সেখানকার রোহিঙ্গারা নতুন করে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চিন্তা করতে না পারে সেই বিষয়ে যথাযথ ভূমিকা রাখতে আমরা সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানাচ্ছি।