চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নির্বাচনকে সামনে রেখে আবারও সেই পুরনো শঙ্কা

একাদশ জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হলেও এ বিষয়ে যে শঙ্কা ছিল তা আবারও প্রমাণিত হয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভায়। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ উৎসবমুখর পরিবেশে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করলেও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা রাজশাহীর জনসভায় আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন।

এমনকি তাদের দাবি না মানা হলে তারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না বলেও জানিয়েছেন।

জনসভায় হুঁশিয়ারি দিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন: আন্দোলনের মাধ্যমেই জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দাবি আদায় করতে হবে। এখন সংকট আরও কঠিন, আরও ভয়াবহ।

Advertisement

একই সুরে কথা বলেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্য নেতারাও। তারা বলেছেন: দাবি না মানলে লংমার্চ, রোডমার্চ হবে, জনসভা হবে, নির্বাচন কমিশন অভিমুখে পদযাত্রা হবে, লড়াই হবে, গণতন্ত্রের মুক্তি, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে। এছাড়া জনসভায় তফসিল পেছানোসহ নানা বিষয়ে নিজেদের অভিযোগ ও দাবি তারা তুলে ধরেছেন।

আমরা এর আগেও বলেছি, রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আরও কথা বলে তফসিল ঘোষণা করা হোক। সেটা হয়নি। এখন আমরা আশা করি, তফসিল যেহেতু ঘোষণা হয়েই গেছে এখন আর আন্দোলন বা হুঁশিয়ারির বদলে সবাই উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করুক। নির্বাচন কমিশন সেই পরিবেশ নিশ্চিত করুক।

একইসঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ অন্যান্য বিরোধী দল ও জোট সমূহের সকল যৌক্তিক দাবি পূরণে সরকার আরও আন্তরিক হবে বলেও আমরা আশা করি। কারণ, নির্বাচনকে সামনে রেখে আন্দোলন এবং এ জাতীয় হুমকি যেমন কাম্য নয়, ঠিক তেমনি সরকারের পক্ষ থেকে বিরোধী দল সমূহের দাবি না মানার প্রবণতাও জনগণ আশা করে না।