চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নিজ ঘরে তাহসান-মিমের শুটিং: ১৪ ঘন্টা ভিডিও কলে নির্মাতা!

শুটিংয়ে ছিল না কোনো পেশাদার ক্যামেরা বা ক্যামেরাম্যান। শিল্পীরা নিজ নিজ মোবাইলে দৃশ্যধারণ করেছেন

করোনাভাইরাসের কারণে ঘরবন্দি থাকলেও প্রায়শই ফেসবুক লাইভে দেখা যাচ্ছিল শিল্পীদের। তবে এবার ঘরে বসে জনপ্রিয় দুই তারকা তাহসান খান এবং বিদ্যা সিনহা মিম নিজেরাই শুটিংয়ে অংশ নিলেন। যেটি ‘কানেকশন’ নামে একটি শর্টফিল্মের।

পরিচালনায় ছিলেন রায়হান রাফী। আর কাজটি সম্পন্ন করতে নির্মাতাকে প্রায় ১৪ ঘন্টা ভিডিও কলে থাকতে হয়েছে! মূলত শর্টফিল্মটি মিমের নতুন ইউটিউব চ্যানেল চাঙ্গা করতেই নির্মাণ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

করোনায় চলমান স্থবিরতার কারণে এ শুটিংয়ে ছিল না কোনো পেশাদার ক্যামেরা বা ক্যামেরাম্যান। শিল্পীরা নিজ নিজ মোবাইলে দৃশ্যধারণ করেছেন। শর্টফিল্মটি নির্মাণ সম্পন্ন করতে মুঠোফোনে সবার সঙ্গে যোগাযোগ করে মধ্যস্থতা করেছেন মোশন রক প্রোডাকশন হাউজের কর্ণধার মাসুদ উল হাসান।

বিজ্ঞাপন

নিজ ঘরে মোবাইল ক্যামেরায় শুটিংয়ে তাহসান

চ্যানেল আই অনলাইনকে তাহসান বললেন, ঘরে বসে শুটিং করা যায় এমন আইডিয়া মাথায় ঘুরছিল। মিম তার চ্যানেলের জন্য কাজটি করতে চাইলো। হয়ে গেল বাসা থেকেই শুটিং।

যোগ করে নন্দিত এ তারকা বলেন, গল্পের ধারণা প্রথমে আমি দেই। রাফীকে দিয়ে গল্পটা সুন্দর করে লেখানো হলো। স্বল্পব্যাপ্তীর কাজ এটি। আমার অংশের কাজ একদিনেই শেষ করেছি। ফোনের ট্রাইপটের সহায়তায় শুটিং করেছি।

এ শর্টফিল্মটির মাধ্যমে প্রায় দু মাস পর শুটিং করলেন মিম। এই লাক্সতারকা বলেন, মুঠোফোন ক্যামেরায় ছিল আমার মা এবং সহকারী। এ দুজনের সহায়তা নিয়েই শেষ করতে পেরেছি। মিম বলেন, শুটিং সেটে কাজ করতে যতোটা সহজ লাগে ঘরে থেকে লাইট, প্রডাকশন, ডিওপির ছাড়া শুটিং করতে আরও বেশি কষ্ট হয়েছে। তবে পরিচালক রাফী সবসময় ভিডিও কলে তৎপর ছিলেন।

রায়হান রাফী বলেন, সেটে না থেকে শুটিং করা বেশ কষ্টসাধ্য। মিম যখন শুটিং করছিল সকাল থেকে রাত পর্যন্ত আরেক ফোনে আমাকে ১৪ ঘন্টার মতো ভিডিও কলে থেকে নির্দেশনা দিতে হয়েছে। এরমধ্যে মাঝেমধ্যে গ্যাপ ছিল। তবে পুরোটাই আমাকে ভিডিও কলে থাকতে হয়েছে। তাহসান ভাইকে মিমের চেয়ে কম সময়েই তার অংশের কাজ শেষ করেছেন। যেমনটা চেয়েছি সেভাবেই কাজটি শেষ করতে পেরেছি।

মিমও তার নিজ বাসায় শুটিং দৃশ্যে…

‘কানেকশন’ শর্টফিল্ম ঈদ টার্গেট করে নির্মাণ হচ্ছে। লকডাউনে আটকে পড়া একজোড়া কাপলের প্রেমের গল্পকে কেন্দ্র নির্মিত হয়েছে। ইতোমধ্যে শুটিং শেষ, বর্তমানে চলছে সম্পাদনা। যার ব্যাপ্তী হবে ১৫ মিনিটের মতো। উন্মুক্ত হবে বিদ্যা সিনহা মিমের নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে।