চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নিজের জীবনের সঙ্গে গল্পের মিল পেয়েছি: মৌসুমী মৌ

নিজের অভিনীত প্রথম নাটক ‘স্যারের মেয়ে’ নিয়ে আসছেন মৌসুমী মৌ। পরিচালনা করেছেন চয়নিকা চৌধুরী…

উপস্থাপনায় সময়ের পরিচিত মুখ মৌসুমী মৌ। প্রথমবার অভিনয় করলেন নাটকে। আর সেই নাটকেই তিনি নিজের জীবনের অনেকটাই মিল খুঁজে পেয়েছেন।

মৌয়ের কাছে বিষয়টি কাকতালীয়! নাটকটির নাম ‘স্যারের মেয়ে’। পরিচালনা করেছেন নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী। সম্প্রতি এ নাটকটির শুটিং সম্পন্ন হয়েছে। আরও অভিনয় করেছেন বর্ষীয়ান অভিনেতা আবুল হায়াত ও মনোজ প্রামাণিক।

বিজ্ঞাপন

‘স্যারের মেয়ে’ নাটকের একটি দৃশ্যে মনোজের সঙ্গে মৌসুমী মৌ

মৌয়ের ভাষ্য, এবারই প্রথম নাটকে অভিনয় করা হলো। একেবারে মূল চরিত্র। অভিনয় আসলেই খুব কঠিন। তবে নাটকের সঙ্গে জড়িতরা আমাকে ভীষণ সাপোর্ট করেছেন। চয়নিকা দিদি, আবুল হায়াত স্যার, মনোজ দা প্রত্যেকেই অসাধারণ।

‘স্যারের মেয়ে’ নাটকে মৌসুমীর বাবার চরিত্রে অভিনয় করেছেন আবুল হায়াত। যিনি শিক্ষক। নাটকের গল্প সম্পর্কে ধারণা দিতে গিয়ে মৌ টানলেন তার ব্যক্তিজীবন।

চ্যানেল আই অনলাইনকে বললেন, আমার বাবাও একজন শিক্ষক। ছোট থেকে সবার কাছে ‘স্যারের মেয়ে’ সম্বোধন শুনে বড় হয়েছেন। স্কুলে বা এলাকাতে স্যারের মেয়ে বৃত্তি পেয়েছে এমনভাবে আমাকে বলা হতো। তাছাড়া আমার জীবনযাপন যেমন, নাটকের গল্পটা অনেকটাই তেমন। সবমিলিয়ে ‘স্যারের মেয়ে’ সম্বোধনে আমি পরিচিত।

সে জন্য নাটকটিতে কাজের ব্যাপারে আকর্ষণ একটু বেশি ছিল বলে জানালেন মৌসুমী মৌ। তিনি বলেন, চয়নিকা দিদির সঙ্গে কাজটি নিয়ে আলাপ হয়েছিল ডিসেম্বরে। ফেব্রুয়ারিতে চিত্রনাট্য পেয়েছি। আরও ভালো লাগার বিষয়, আবুল হায়াত স্যারের মেয়ের ভূমিকার অভিনয় করা। শুটিংয়ে আমি আজ রবিবার, অয়োময়, বহুব্রীহি, নক্ষত্রের রাত নাটকে ফিরে যাই। সেখানেও তাকে বাবা হিসেবে দেখেছি। শুটিংয়ে তিনি ভীষণ কমফোর্ট ছিলেন। প্রথমদিনে কঠিন দৃশ্যের কাজগুলো হয়েছে। আগে থেকে রিহার্সেল করতে হয়েছে। মনোজের সঙ্গে রোমান্টিক দৃশ্যগুলো হচ্ছিল না। কমফোর্ট করার পর পরে আর অসুবিধা হয়নি।

‘স্যারের মেয়ে’ নাটকটি লিখেছেন মিজানুর রহমান বেলাল। সংগীত করেছেন মার্সেল। এস আর মাল্টিমিডিয়ার নিবেদনে নাটকটি প্রযোজনা করেছেন শাহীদা রহমান। নির্মাতা সূত্রে জানা যায়, বিশেষ দিবসে এ নাটকটি একটি বেসরকারি টিভিতে প্রচারিত হবে।

অভিনেতা আবুল হায়াত ও নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরীর সাথে মৌসুমী মৌ

নানামাত্রিক অনুষ্ঠান উপস্থাপনা দিয়ে মৌয়ের পরিচিতি। গেল বছর তিনি ‘ঘুড্ডি’ খ্যাত নির্মাতা সৈয়দ সালাহউদ্দীন জাকীর পরিচালনায় ‘অগ্নিফসল’ টেলিফিল্মে কাজ করেছিলেন। প্রচার হয়েছিল চ্যানেল আইতে। সেখানে পেয়েছিলেন আফজাল হোসেনের মতো অভিনেতাকে। এছাড়া প্রাচ্যনাট থিয়েটারে ২৯তম ব্যাচে স্কুলিংয়ের পর সেখানে বছর খানেক ছিলেন মৌ।

২০১৪ থেকে ‘ঢাকা ইউনিভার্সিটি মাইম অ্যাকশন’ সংগঠনের সঙ্গে জড়িত। ২০১৬ সালে দিল্লীতে মূকাভিনয় নিয়ে শো করতে গিয়েছিলেন। চীনে ও কলকাতাতে মূকাভিনয় নিয়ে একাধিকবার শো করেছেন। সলো পারফর্মেন্স ছিল ‘হ্যাশ ট্যাগ মিটু’।