চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নিজের গায়ে আগুন দেয়া সেই ‘নীল বালিকার’ মৃত্যু

ফুটবল মাঠে ঢোকাকে কেন্দ্র করে তিন দিন জেল হওয়া ‘ব্লু গার্ল’ খ্যাত ইরানি তরুণীর মৃত্যু হয়েছে। নিজের গায়ে আগুন লাগিয়ে দেয়ার এক সপ্তাহ পর হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে তার।

পুরুষ সেজে মাঠে ঢোকার অপরাধে বিচারের কারণে তেহরানে নিজ গায়ে আগুন লাগিয়ে দেন সাহার ছদ্মনামে পরিচিত ওই তরুণী।

বিজ্ঞাপন

বিবিসি জানায়, ইরান সরকার তরুণীদের মাঠে প্রবেশে বাধা দিয়ে থাকে। কিন্তু প্রিয় ফুটবল দল এস্তেঘলাল অফ তেহরানের খেলা দেখতে গত মার্চে পুরুষের বেশে মাঠে প্রবেশের চেষ্টা করেন ওই তরুণী। এসময় গ্রেপ্তার হন তিনি। তাকে তিন দিনের জেল দেয়া হয়। পরে অবশ্য জামিনে মুক্তি পান তিনি।

তার এই ঘটনা সারা বিশ্বে থাকা ইরানিরা গুরুত্ব সহকারে নেন। তার প্রিয় দলের নীল রংয়ের সাথে সামঞ্জস্য রেখে ইরানিরা হ্যাসট্যাগ ‘‘ব্লু গার্ল” শব্দের প্রচলন ঘটান।

বিজ্ঞাপন

তাকে জামিনে মুক্তি দেয়া হলেও তার মামলার রায় পেতে ছয় মাস সময় লেগে যায়। কিন্তু তিনি যখন আদালতে যান তখন পারিবারিক কাজের কারণে বিচারক তা মুলতবি করে দেন।

এরপর আবারও তিনি তার মোবাইল ফোন আনতে আদালতে যান। গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, এদিন তিনি আদালতে গেলে কেউ বলছিলেন যে, দোষী প্রমাণিত হলে তাকে ছয় সপ্তাহ থেকে দুই বছরের জেল দেয়া হতে পারে।

ওই তরণী এই কথা শুনে ফেলেন এবং আদালত প্রাঙ্গণেই গায়ে আগুন দেন। এরপর হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

তার এই ঘটনা অনেক বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। ইরানের জাতীয় পুরুষ ফুটবল দলে অধিনায়ক মাসউদ শোজায়েই ইনস্টাগ্রামে বলেন, ‘‘মান্দাতার আমলের ও ধামাধরা বদ্ধমূল চিন্তাধারা ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য বোধগম্য হবে না”।ইরান ১৯৮১ সাল থেকে পুরুষের খেলা দেখতে নারীদের মাঠে যাওয়া নিষিদ্ধ করেছে। তবে মাঠে নারীদের প্রবেশের এই নিষেধাজ্ঞা আইনে লিখিত নেই। গত বছর তেহরানের একটি মাঠে বিশ্বকাপ দেখার জন্য সাময়িকভাবে এই নিয়ম তুলে নেয়া হয়।

ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফা নারীদের মাঠে যাওয়ার অনুমতি দেয়ার জন্য ইরানকে গত ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সময় বেধে দেয়। তবে দেশটি এখনো তা কার্যকর করেনি।

Bellow Post-Green View