চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নিউইয়র্কে বর্ণিল আয়োজনে চ্যানেল আইয়ের জন্মদিন উদযাপন

আরও যুগোপযোগী আর নতুনত্বের প্রত্যাশা নিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে নিউইয়র্কে উদযাপিত হয়েছে চ্যানেল আইয়ের জন্মদিন।

চ্যানেল আই কার্যালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে চ্যানেলটির ২২তম জন্মদিনের কেক কাটেন বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।

বিজ্ঞাপন

তবে করোনাকালীন এ অনুষ্ঠানে উপস্থিতি সীমিত রাখা হয়। জন্মদিন উপলক্ষে ব্যানার, ফেস্টুন, বেলুন আর তাজা ফুল দিয়ে সাজানো হয় নিউইয়র্কের চ্যানেল আই কার্যালয়।

বিজ্ঞাপন

শিক্ষক, সাহিত্যিক, সাংবাদিক, শিল্পী, মুক্তিযোদ্ধা, ব্যবসায়ী, বাংলাদেশী আর মূলধারার রাজনীতিবিদদের পদচারণায় চ্যানেল আই প্রাঙ্গণ ছিল মুখরিত।

চ্যানেল আই অনলাইন প্রতিনিধি শাহ ফারুক রহমান ও মোহাম্মদ শামীমের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন চ্যানেল আইয়ের যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি ও চ্যানেল আই যুক্তরাষ্ট্রের সিইও মুক্তিযোদ্ধা রাশেদ আহমেদ।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, চ্যানেল আইয়ের ২২ বছরের এ পথ চলায় আপনাদের যে সমর্থন ছিল, ভবিষ্যতেও তা অব্যাহত থাকবে বলে আমি আশা করি।

আলোচনায় অংশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ডক্টর সিদ্দিকুর রহমান বলেন, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন আর মানসম্মত অনুষ্ঠান দিয়ে চ্যানেল আই দেশে-প্রবাসে কোটি মানুষের হৃদয়ে ঠাঁই করে নিয়েছে।

বিশিষ্ট কমিউনিটি লিডার শাহ নেওয়াজ বলেন, চ্যানেল আই সব শ্রেণী পেশার মানুষের কথা বলে। আর তাই চ্যানেলটি এত জনপ্রিয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রতিদিন ইউএস’র সম্পাদক লাভলু আনসার, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন যুক্তরাষ্ট্র শাখার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির মিয়া, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট ফাহাদ সোলায়মান, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয় পার্টির সভাপতি আবু তালেব চান্দু, উদ্যোক্তা নিলুফার শিরীন, রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ।

এর আগে এক ভিডিও বার্তায় নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেসা বলেন, নতুন বছরে চ্যানেল আই বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন আর অনুষ্ঠানের মানের উৎকর্ষতা সাধনে আরও বেশি উদ্যোগী হবে। তিনি চ্যানেল আইয়ের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করেন।

পরে নৈশভোজে অংশ নেন আগত অতিথিরা। সবশেষে ছিলো সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। এতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন শাহ মাহবুবসহ নিউইয়র্কর স্থানীয় শিল্পীরা।