চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নারী পরিবেশবাদীকে ঘাড় ধাক্কা দেয়ায় ব্রিটিশ মন্ত্রী বরখাস্ত

ভোজসভা থেকে পরিবেশবাদী আন্দোলনের এক নারী কর্মীকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়ায় যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দপ্তরের মন্ত্রী মার্ক ফিল্ড বরখাস্ত হয়েছেন।

দেশটির প্রভাবশালী গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে: বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় লন্ডনের ম্যানসন হাউজে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের একটি দলের সঙ্গে প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাদের বৈঠক শেষে নৈশভোজের প্রস্তুতি চলছিল। এসময় ব্রিটেনের অর্থনীতিতে ব্রেক্সিটের প্রভাব নিয়ে বক্তৃতা করছিলেন চ্যান্সেলর ফিলিপ হ্যামন্ড। ঠিক তখনই গ্রিন পিস মুভমেন্টের কয়েকজন নারী কর্মী সেখানে উপস্থিত হন। তারা উচ্চস্বরে কিছু প্রতিবাদ জানাচ্ছিলো। এরমধ্যে একজন নারী দল থেকে বের হয়ে সভায় প্রবেশ করেন।

তার উপস্থিতি দৃষ্টিগোচর হওয়ার পর ব্রিটেনের পররাষ্ট্র দপ্তরের মন্ত্রী মার্ক ফিল্ড তার কাছে জানতে চান তিনি এখানে কী করছেন। জবাবে ওই পরিবেশবাদী জানান: তিনি সেখানে পরিবেশবাদীদের পক্ষ থেকে নীরব প্রতিবাদ জানাতে এসেছেন।

এটা জানার পর মার্ক তাকে আয়োজনস্থল ত্যাগ করতে বলেন। কিন্তু গ্রিন পিস মুভমেন্টের ব্যাজধারী এ নারী পরিবেশবাদী তাতে অস্বীকৃতি জানিয়ে নিজের অবস্থান চালিয়ে যান। কিছুক্ষণ পর তিনি যখন স্থান বদল করে মন্ত্রীর ঠিক পেছনে অবস্থান নিতে যান তখনই দেখা দেয় বিপত্তি।

বিজ্ঞাপন

এসময় নিজের চেয়ার ছেড়ে পেছন থেকে অতিক্রম করে যাওয়া ওই নারী পরিবেশবাদীর টুটি চেপে ধরেন মার্ক। এমনকি ঘাড় ধরেই তাকে সভাস্থল থেকে বের করে দেন। এই ভিডিও যখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধড়িয়ে পড়ে মার্ক ফিল্ডের সমালোচনা শুরু হয় সর্বত্র।

কিন্তু অবাক করার বিষয় হলো মার্ক যখন একজন নারীর সঙ্গে এমন অসদাচরণ করছিলেন, তখন নৈশভোজে আমন্ত্রিত অধিকাংশ অতিথি হাতে তালি দিয়ে তাকে সমর্থন জানাচ্ছিলেন। এমনকি সেখানে থাকা নারীরাও তালি দিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে সমর্থন জানিয়েছেন।

তবে এ ঘটনা সামনে আসতেই যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র দপ্তরের মন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছেন বিরোধী পক্ষ। যদিও এ ঘটনার পর তাকে সমর্থন জানিয়েছিলো তার দল কনজারভেটিভ পার্টি। দলের চেয়ারম্যান ব্র্যান্ডন লুইস এক প্রতিক্রিয়ায় বলেছিলেন: সবার সামনেই ক্ষমা চেয়েছেন ফিল্ড। মুহূর্তের উত্তেজনায় তিনি এমন কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলেছেন বলে দাবি করেছেন।

মার্ক নিজের সাফাইয়ে বলেন: নৈশভোজের সময় জরুরি বক্তৃতা চলছিল। আচমকাই কয়েকজন আন্দোলনকারী চিৎকার-চেঁচামেচি করে স্লোগান তুলে সভা কক্ষের শান্তি ভঙ্গ করে দেয়। আন্দোলনকারীদের দেখে অনেকেই ভয় পেয়ে যান। কাছাকাছি কোনো নিরাপত্তা রক্ষীও ছিলেন না। কাজেই আমি এগিয়ে গিয়ে ওদের বের করে দেই।

এ ঘটনার পর গ্রিন পিসের পক্ষ থেকে আরিবা হামিদ মার্ক ফিল্ডের শাস্তি দাবি করে বলেন: ফিল্ডের নিজের দিকে তাকিয়ে ভাবা উচিত। একজন মন্ত্রী হয়ে উনি কীভাবে এমন অবিবেচকের মতো কাজ করলেন? পাবলিক প্লেসেও কি উনি এমনই আচরণ করেন? ম্যানসন হাউজ থেকে ফেরার পর এখন পর্যন্ত ওই নারী ট্রমার মধ্যে রয়েছেন। কৃতকর্মের জন্য মার্ক ফিল্ডের শাস্তি হওয়া উচিত।

Bellow Post-Green View