চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতা প্রতিরোধে ক্রিমিনোলজি এসোসিয়েশনের সেমিনার

‘নারীর বিরুদ্ধে সহিংসতা: সামাজিক ও আইনগত ব্যবস্থা’ শিরোনামে অনলাইনে একটি সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। আগামী ৩১ অক্টোবর সন্ধ্যা ৭টায় সেমিনারটি শুরু হবে এবং ওই দিন বাংলাদেশ ক্রিমিনোলজি এসোসিয়েশনের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হবে।

সেমিনারে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিমিনোলজি এন্ড পুলিশ সায়েন্স বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনাব সুব্রত ব্যানার্জী। প্রবন্ধের উপর আলোচনায় অংশ নেবেন দেশের বিভিন্ন সেক্টরে স্ব স্ব ক্ষেত্রে অবদান রাখা প্রথিতযশা ব্যক্তিরা।

বিজ্ঞাপন

অনলাইন সেমিনারে সভাপতিত্ব করবেন বাংলাদেশ ক্রিমিনোলজি এসোসিয়শনের সভাপতি প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।

সেমিনারে ক্রিমিনোলজি, ক্রিমিনাল জাস্টিস সিস্টেম, পুলিশিং, সন্ত্রাসবাদ সহ সমমনা ডিসকোর্সে অধ্যয়নরত ও প্র্যাকটিশনাররা শ্রোতা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন এবং বিভিন্ন ইস্যুতে তাদের মতামত প্রদানের সুযোগ পাবেন।

বাংলাদেশের যেসব বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রিমিনোলজি বিষয়ে পাঠদান করানো হয়ে থাকে সেসব বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা স্বত:স্ফূর্তভাবে সেমিনারে অংশগ্রহণের মাধ্যমে ক্রিমিনোলজি এসোসিয়শনের অগ্রযাত্রার সোপানে সামিল হবেন।

বিজ্ঞাপন

প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, কঠোর হস্তে অপরাধ দমন করতে হবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে। আধুনিক ও উন্নত পুলিশিং এর জন্য গবেষণার বিকল্প নেই এবং এর পরিপ্রেক্ষিতে গবেষণাধর্মী প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম।

একটি স্বার্থক ও কর্মউদ্দীপ্ত সংগঠনের জন্য বিভিন্ন সেক্টরের প্রতিষ্ঠিত মানুষদের সমন্বয় সাধনের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা ও কর্মপরিধিকে বেগবান করতে পারলে প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্য বাস্তবিকভাবেই সফলতার পদযাত্রা অঙ্কিত হয়ে থাকে। তারই ধারাবাহিকতায় একাডেমিশিয়ান, সমাজকর্মী, সমাজবিজ্ঞানী, অপরাধবিজ্ঞানী, পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, আইনজীবী, গবেষক, প্রফেশনালস, মানবাধিকারকর্মী ও ক্রিমিনোলজি ডিসিপ্লিনের শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে বাংলাদেশ ক্রিমিনোলজি এসোসিয়েশনের আত্মপ্রকাশ ঘটতে যাচ্ছে।

উক্ত প্রতিষ্ঠানের সভাপতির পদ অলংকৃত করেছেন বিশিষ্ট সমাজবিজ্ঞানী, জনপ্রিয় অধ্যাপক, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন, বাংলাদেশে ক্রিমিনোলজিক্যাল জ্ঞানের বিকাশে অন্যতম পথপ্রদর্শক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ বিন কাশেম।

ক্রিমিনোলজি এসোসিয়েশনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে সমগ্র বাংলাদেশকে ক্রিমিনোলজিক্যাল শিক্ষা ও গবেষণায় সমৃদ্ধ করার ক্ষেত্রে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন এবং তৎসাপেক্ষে পলিসি লেভেলে যথার্থ মতামত প্রদানের ভিত্তিতে অপরাধ প্রতিকার ও প্রতিরোধের জন্য সক্রিয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা।

সংগঠনটি বেশ কিছু উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে করোনার এ মহাদুঃসময়ে তাদের আত্নপ্রকাশ ঘটাতে যাচ্ছে চমৎকার তথা যুগোপযোগী সেমিনারের আয়োজনের মাধ্যমে। সমগ্র বাংলাদেশে ক্রিমিনোলজি, ক্রিমিনাল জাস্টিস সংক্রান্ত একাডেমিক ডিসিপ্লেনকে অনার্স এবং মাস্টার্স পর্যায়ে দেশের সবক’টি বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠদানের ব্যবস্থা গ্রহণকল্পে কাজ করা। বছরব্যাপী ক্রিমিনোলজিক্যাল ইস্যু নিয়ে ওয়ার্কসপ, সেমিনার, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কনফারেন্সের আয়োজন নিশ্চিত করা। নামকরা বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে তাত্ত্বিক কোর্স ও গবেষণা কর্ম সম্পাদনের স্বার্থে চুক্তি সম্পাদন করা।

এছাড়া সংগঠনের সদস্যদের বৈজ্ঞানিক জ্ঞান ও পেশাগত দক্ষতা অর্জনের স্বার্থে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নিশ্চিত করা। জ্ঞান বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় যাদের পারঙ্গমতা রয়েছে সংগঠনের সদস্যদের জ্ঞানের বিস্তারে তাদের সঙ্গে নিয়মিত মতবিনিময় সভার আয়োজন করা। সংগঠনের ব্যানারে নিয়মিত জার্নাল, ম্যাগাজিন ও একাডেমিক বই প্রকাশের কার্যক্রম হাতে নেওয়া।