চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নানা আয়োজনে কানাডা দিবস পালিত

বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় পালিত হয়েছে কানাডার ১৫২তম জন্মদিন। বছরের বেশীর ভাগ সময়ই বরফাচ্ছন্ন দেশটির জন্মদিনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে যোগ দেয় প্রবাসী বাঙ্গালীরাও।

আয়তনের দিক থেকে কানাডা ৯ হাজার ৯শত ৮৫ মিলিয়ন কিলোমিটার হলেও জনসংখ্যা মাত্র ৩৬ মিলিয়ন।  যার রয়েছে ১০টি প্রভিন্স এবং ৩টি টেরিটোরিজ।  ১৯৭১ সালে কানাডাই বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে ঘোষণা দেয় মাল্টিকালচারিজমের, যার মূলমন্ত্র হলো সকল নাগরিকের থাকবে সমান অধিকার ও দায়িত্ব।

বিজ্ঞাপন

যার ফলস্বরূপ দেশটির জন্মলগ্ন থেকে এ পর্যন্ত ১৭ মিলিয়নের বেশী লোক অভিবাসী হয়ে দেশটিতে এসে স্থায়ীভাবে বসবাস করছে।  কানাডা শান্তি রক্ষায় সবসময় গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করে আসছে। কানাডাবাসী  ভদ্র জাতি হিসেবে পরিচিত।  কানাডার ইমিগ্রেশন সংস্থার হিসেব অনুযায়ী প্রতিবছর প্রায় আড়াই লাখ অভিবাসন প্রত্যাশী পাড়ি দেয় কানাডায়।

এক সমীক্ষায় দেখা গেছে কানাডার বিচার ব্যাবস্থা, নির্বাচনী প্রক্রিয়া, শিক্ষা ব্যাবস্থা, চিকিৎসা যোগাযোগ ব্যাবস্থা, জীবনের নিরাপত্তা, স্থীতিশীল অর্থনীতি শক্তিশালী ব্যাংকিং ব্যাবস্থা একটি ব্যতিক্রমধর্মী দেশ হিসেবে বিশ্বের সকলের কাছে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে কানাডার প্রধানমন্ত্রীজাস্টিন ট্রুডো এবং আলবার্টা প্রিমিয়ার জেসন কেনী পৃথক পৃথক শুভেচ্ছা বাণী দিয়েছে।  স্থানীয় জেনেসিস সেন্টার প্রেইরি উন্ডসপার্ক, রকিভিউ এলাইন্স, ডাউন টাউনসহ ক্যালগ্যারীর প্রায় প্রতিটি স্থানেই ছিলো উপচে পড়া ভিড়।

জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে মুল অনুষ্ঠান শুরু হয়।  এরপর কানাডার জন্মদিনের কেককাটা ছোটছোট শিশু-কিশোরদের ফেসপিন্টর,জর্লি জার্ম্পসহ বিভিন্নধরনের খেলাধুলা এবং কানাডার আদিবাসীদের শারিরীক কসরত ছাড়াও আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়।

ক্যালগেরির এবিএম কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট এবং বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ড.মোঃ বাতেন বলেন, দুর প্রবাসে থাকলেও মাতৃভুমি আমাদের হৃদয়ে ,দেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা আমাদের আশার আলো দেখায়।  বাংলাদেশ এখন বিশ্বের অন্যতম রোল মডেল দেশ।  কানাডার জন্মদিনে আমাদের প্রত্যাশা প্রচুর সংখ্যক বাঙ্গালীরা এদেশে আসুক জ্ঞান অর্জনের জন্য এবং বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভুমিকা রাখুক।

বিজ্ঞাপন

বেঙ্গল ফার্মেসী ও কমিউনিটি আর এক্স বাংলাদেমী ফার্মেসী গ্রুপের চেয়ারম্যান ও স্বত্তাধিকারী ড, ইব্রাহিম খান বলেন,- বিশ্ববাসী আজ বাংলাদেশ নিয়ে ভাবছে।  আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও প্রবৃদ্ধিতে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।  প্রবাসী হয়েও আমরা বাংলাদেশ কে নিয়ে গর্ব করি, অহংকার করি। বাংলাদেশ আরো এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ ও কানাডার দুদেশের মধ্যে সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে- কানাডার ১৫২তম জন্মদিনে এটাই আমার প্রত্যাশা।

ক্যালগেরির ফ্যামেলি ফিজিশিয়ান ডাঃ মোঃ জাকির হোসেন বলেন, আমরা আনন্দিত যে কানাডায় বসে কানাডার ১৫২ তম জন্মদিনে অংশ গ্রহন করতে পারছি।  শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতে  প্রচুর সংখ্যক বাংলাদেশী এদেশে এসে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করুক এমনটাই কামনা করছি।

আইসিডিসি এর পরিচালক এ্যান্থনি জ্যাকব বলেন, বাংলাদেশ যেমন আমাদের অহংকার পাশাপাশি কানাডাও আমাদের কাছে অহংকার, কানাডার জন্মদিনে অনেক অনেক শুভেচ্ছা।  আমাদের ভুলে গেলে চলবে না, বাংলাদেশকে যে কটি দেশ স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিল কানাডা তাদের মধ্যে অন্যতম দেশ।

ইউটার্ন প্রজেক্টের প্রতিষ্ঠাতা জয়ন্ত চৌধুরী বলেন, আমরা যারা অভিবাসী হয়ে এদেশে আসি সবারই হৃদয় পড়ে থাকে নিজ দেশে।  দেশের উন্নয়ন আমাদের গর্বিত করে,বিশ্বের কাছে নিজেদের ভাবর্মর্তি উজ্জল করে।  কানাডার ১৫২তম জন্মদিনে অফুরন্ত ভালবাসা।  দীর্ঘজীবি হোক কানাডা।

ক্যালগেরির ফ্যামিলি ফিজিশিয়ান ডাঃ জাকি আজম শিকদার বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও প্রবৃদ্ধিতে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের রোল মডেল।  কানাডার জাতীয় দিবসে অনেক আনন্দ করছি।  দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হোক এটাই আমার প্রত্যাশা।

বাংলাদেশ কানাডা এসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির সভাপতি কাজী এহসান বলেন, আমরা গর্বিত এবং আনন্দিত যে বাংলাদেশ আজ অনেক দুরে এগিয়ে যাচ্ছে।  প্রতিযোগীতা করছে বিশ্বের অন্যান্য দেশের সাথে।  কানাডার ১৫২ তম জন্মদিনে অনেক শুভেচ্ছা।

বালাদেশ কানাডা এসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির সাধারন সম্পাদক মোঃ রশিদ রিপন বলেন,- কানাডার ১৫২ তম জন্মদিনে এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে আমাদের প্রাণঢালা অভিনন্দন।  বাংলাদেশ ও কানাডার মধ্যে সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হোক এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

১৯৭১ সালে যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশকে যে সকল দেশ স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিল।  তাদের মধ্য অন্যতম দেশ কানাডা।  সেই কানাডার জন্মদিনেই দেশটির আরো উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি হোক,প্রচুর সংখ্যক বাঙ্গালীরা এখানে এসে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে এবং প্রবৃদ্ধিতে বিরাট ভুমিকা রাখুক এমনটাই প্রত্যাশা এখানকার প্রবাসী বাঙ্গালীদের।