চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নাঈমের সেঞ্চুরির পরও হারল ঢাকা

শেষ চারে বরিশাল

নাটকীয়তায় ভরা ম্যাচে বেক্সিমকো ঢাকাকে ২ রানে হারিয়ে বঙ্গবন্ধু টি-টুয়েন্টি কাপে শেষ চার নিশ্চিত করেছে ফরচুন বরিশাল। বিফলে গেছে ঢাকার ওপেনার নাঈম শেখের প্রথম সেঞ্চুরি। লিগ পর্বের শেষ ম্যাচটি জিতলে প্রথম কোয়ালিফায়ার খেলার সুযোগ ছিল মুশফিকুর রহিমের দলের।

ঢাকা-বরিশাল আবার মুখোমুখি হবে এলিমিনেটর ম্যাচে। জেমকন খুলনা রান রেটে এগিয়ে থাকায় খেলবে প্রথম কোয়ালিফায়ার। সাকিব-তামিম-মাশরাফীদের প্রতিপক্ষ সর্বোচ্চ ১৪ পয়েন্ট নিয়ে কোয়ালিফায়ার আগেই নিশ্চিত করে ফেলা সৌম্য-লিটনদের গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। দুটি ম্যাচই আগামী সোমবার।

বিজ্ঞাপন

১৯৪ রানের বড় লক্ষ্য দিয়েও বরিশাল বোলারদের স্বস্তিতে থাকতে দেননি নাঈম। শুরুতে ধীরগতিতে খেলা এ বাঁহাতি ওপেনার বিধ্বংসী হন ফিফটি ছোঁয়ার পর। প্রথম পঞ্চাশ করেন ৪৩ বলে, পরের পঞ্চাশ মাত্র ১৭ বলে। ৬০ বলে তিন অঙ্কে পৌঁছান এ হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান।

বরিশাল: ১৯৩/৩ (২০ ওভার), ঢাকা: ১৯১/৬ (২০ ওভার)
৬৪ বলে ১০৫ রানের ইনিংস খেলে নাঈম আউট হওয়ার পর রান তোলার গতি কমে যায় ঢাকার। শেষ পর্যন্ত লড়াকু ক্রিকেটে খেলে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৯১ রানে থামে তারা। নাঈমের ইনিংসে ছিল ৮টি চার ও ৭টি ছয়ের মার।

বিজ্ঞাপন

ইয়াসির আলি করেন ৪১ রান। দুজন চতুর্থ উইকেট জুটি যোগ করেন ১১০ রান।

দারুণ বোলিং করেছেন সোহরাওয়ার্দী শুভ। বঙ্গবন্ধু কাপে প্রথমবার একাদশে সুযোগ পেয়েই নেন তিন উইকেট। ৩ ওভারে দেন মাত্র ১৩ রান। সুমন খান ও কামরুল ইসলাম রাব্বি নেন একটি করে উইকেট।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে আফিফ হোসেন ধ্রুব ও তৌহিদ হৃদয়ের অসাধারণ ফিনিশিংয়ে ১৯৩ রানের বড় সংগ্রহ গড়ে বরিশাল। তিন তরুণ ব্যাটসম্যান পেয়েছেন ফিফটি।

ওপেনার সাইফ হাসান ৫০ রান করে আউট হন। তৌহিদ ৫১ ও আফিফ ৫০ রানে অপরাজিত থাকেন। চতুর্থ উইকেটে অবিচ্ছিন্ন জুটিতে তারা মাত্র ৩৮ বলে যোগ করেন ৯১ রান। রুবেল হোসেন, মুক্তার আলি ও আল-আমিন নেন একটি করে উইকেট।

পাঁচ দলের আসর থেকে বিদায় নিয়েছে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী। আট ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ৪। বরিশাল ৬, খুলনা ও ঢাকা সমান ৮। আর চট্টগ্রামের পয়েন্ট ১৪।