চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নতুন বছরে প্রতীক্ষার বাংলা ছবি, প্রত্যাশা পূরণ হবেতো?

নামে মাত্র চলচ্চিত্রে নয়, সারা বছর দর্শক এখন অপেক্ষায় থাকে ভালো ভালো চলচ্চিত্র দেখতে

নানা কারণেই বিনোদনের সবচেয়ে বড় মাধ্যম এখনো চলচ্চিত্রই। সে হিসেবে সারা বছরই এর চাহিদা শীর্ষে। তবে নামে মাত্র চলচ্চিত্রে নয়, সারা বছর দর্শক এখন অপেক্ষায় থাকে ভালো ভালো চলচ্চিত্র দেখতে। প্রতি বছরেই বহু ছবি নির্মাণ হলেও দর্শক তার মধ্য থেকে গ্রহণ করেন ভালো গল্প, দৃশ্যায়ণ আর সুনিপুন নির্মাণ শৈলীর ছবিগুলোই। বাকিগুলো মুখ থুবড়ে পরে।

বছরের প্রথমদিনেই ২০১৯ সালে কোন মানের ছবিগুলি মনে জায়গা করে নিতে পারে, এমন কৌতূহল নিশ্চয় দানা বেঁধেছে? তাহলে চলুন এ বছর বড় পর্দায় আলোচনার সৃষ্ঠি করতে পারে এমন কিছু সম্ভাব্য ছবির নাম দেখা নেয়া যাক:

শনিবারের বিকেল: বাংলাদেশ-ভারত-জার্মান এই ত্রিদেশীয় যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত বহুল প্রতীক্ষিত চলচ্চিত্র ‘শনিবারের বিকেল’। যার পরিচালক মেধাবী নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। সদ্য বিদায়ী বছরে ছবিটি মুক্তির কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত মুক্তি দেননি নির্মাতা। তবে চলতি বছরে যেকোনো সুবিধাজনক সময়ে এই ছবিটি মুক্তি দিবেন ফারুকী।

জাহিদ হাসান, পরমব্রত, তিশা এবং ফিলিস্তানি অভিনেতা ইয়াদ হুরানিকে কাস্টিং করে সিনেমা শুরুর আগেই আলোচনায় ছিলো ‘শনিবারের বিকেল’। এছাড়া ছবির গল্পের জন্যও মুক্তির পর বছরের আলোচিত ছবির তালিকায় জায়গা নিতে পারে।  হতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। ২০১৬ সালে গুলশানে ঘটে যাওয়া হলি আর্টিজন জঙ্গি হালমা নিয়েই এ ছবির প্লট। তাই গত বছর যখন ছবির শুটিং শুরু হয়েছিল তখন থেকে শনিবারের বিকেল নিয়ে মাতামাতি হয়েছিল। জানা গেছে, এ বছর মাঝামাঝি সময়ে মুক্তি পাবে শনিবারের বিকেল।

শাহেনশাহ : শাকিব খান অভিনীত ছবি ‘শাহেনশান’। শাপলা মিডিয়া প্রযোজিত এ ছবির পরিচালক শামীম আহমেদ রনি। এ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার শাকিব খানের সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন নুসরাত ফারিয়া। সঙ্গে আছেন নবাগত রোদেলা জান্নাত। গত বছর নির্মাণের শুরু থেকে থেকে আলোচনার টেবিল গরম রেখেছে ‘শাহেনশাহ’। পরিচালক রনি আগেই জানিয়েছেন, শাহেনশাহ মুক্তির পর দেশের সিনেমার দর্শকদের কাছে শাকিব খান ঢালিউডের শাহেনশাহ নামে পরিচিত হবেন। গেল অক্টোবরে এ ছবির শুটিং শুরু হয়। গান বাদে সবকাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। নির্মাতা সূত্রে জানা গেছে, আগামী কয়েকমাসের মধ্যেই ‘শাহেনশাহ’ মুক্তি পাবে।

ফাগুন হাওয়ায় : তৌকীর আহমেদ পরিচালিত ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত ছবি ‘ফাগুন হাওয়ায়’। ভাষা আন্দোলনের উপর নির্মিত এই ছবিটিকে বলা হচ্ছে, ২০১৯ সালের সবচেয়ে প্রতীক্ষিত সিনেমাগুলোর একটি। টিটো রহমানের ‘বউ কথা কও’ গল্পের অনুপ্রেরণায় নির্মিত হয়েছে ‘ফাগুন হাওয়ায়’। ছবিতে জুটি বেধে অভিনয় করেছেন সিয়াম আহমেদ ও তিশা। এছাড়াও অভিনয় করছেন বলিউডের অভিনেতা যশপাল শর্মা, আবুল হায়াৎ, আফরোজা বানু, ফারুক হোসেন, সাজু খাদেম, আজাদ সেতু, হাসান আহমেদ প্রমুখ। ‘ফাগুন হাওয়ায়’ ৮ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পাবে বলে আগেই জানানো হয়েছে।

যদি একদিন : গত বছরের অন্যতম আলোচিত ছবি ‘যদি একদিন’। মুস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত এ ছবি ফেব্রুয়ারি মাসেই মুক্তি পাবে। যদিও এখনও তারিখ ঠিক হয়নি। এ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার বড়পর্দায় অভিনয় করলেন তাহসান খান। তার নায়িকা কলকাতার শ্রাবন্তী। আরও একঝাঁক তারকা মিলে অভিনয় করেছেন যদি একদিনে। দেশের জনপ্রিয় কয়েকজন সংগীত তারকা মিলে কাজ করেছেন এর গানে। ধারণা করা যাচ্ছে, ‘যদি একদিন’ চলতি বছরের অন্যতম সফল ছবি হওয়ার রেসে টিকে থাকবে।

নোলক: শাকিব খান অভিনীত আরেক ছবি ‘নোলক’। গেল বছরে মুক্তির কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে ২০১৯ সালে। শাকিবের সঙ্গে এ ছবির মাধ্যমে কয়েক বছর আবার পর্দায় ফিরছেন চিত্রনায়িকা ববি। ছবিতে শাকিব খানের লুক ও ছবির নানা টুইস্টের কারণে নির্মাণের শুরু থেকে ব্যাপক আলোচিত ছিল। সাকিব সনেট প্রযোজিত ও পরিচালিত এ ছবির শুটিং শেষ হয়েছে। এখন সেন্সর পাওয়ার অপেক্ষা রয়েছে। পরিচালক সনেট বলেন, সেন্সর পেলেই মুক্তির তারিখ ঘোষণা করবো। চলতি বছর শাকিব খানের এই ছবিটিকে ঘিরেও অনেক প্রত্যাশা ঢাকাই ছবির বাজারে।

মেড ইন বাংলাদেশ: ‘মেহেরজান’ ও ‘আন্ডার কনস্ট্রাকশন’ নির্মাণ করে শুধু বাংলাদেশেই নয়, নির্মাতা রুবাইয়াত হোসেন পরিচিতি পেয়েছেন আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও। চলতি বছরে তিনি নিয়ে আসছেন তার নির্মিত তৃতীয় সিনেমা ‘মেড ইন বাংলাদেশ’। ইতিমধ্যে এই ছবিটির বিশ্ব পরিবেশকের দায়িত্ব পালন করছে ফরাসি সেলস এজেন্ট ও পরিবেশক প্রতিষ্ঠান পিরামিড ফিল্ম। একই সঙ্গে ফ্রান্সের স্থানীয় প্রেক্ষাগৃহেও ছবিটির পরিবেশনার দায়িত্ব পালন করবে প্রতিষ্ঠানটি।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশে নারীদের ক্ষমতায়নে ও আত্মনির্ভরশীলতা অর্জনে পোশাকশিল্পের যে ভূমিকা সেটা নিয়েই মূলত ছবির কাহিনি। ফ্রান্স, ডেনমার্ক, পর্তুগাল ও বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত এই চলচ্চিত্রের মূল অর্থায়ন এসেছে ফ্রান্স সরকারের সিএনসি ফান্ড, নরওয়ে সরকার প্রদত্ত সোরফন্ড প্লাস, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন প্রদত্ত ইউরিমাজ ফান্ড ও ডেনমার্কের ড্যানিশ ফিল্ম ইন্সটিটিউট ফান্ড থেকে। এছাড়াও ২০১৭ সালে লোকার্নো চলচ্চিত্র উৎসবের ওপেন ডোরস-এ অংশ নিয়ে এই ছবির চিত্রনাট্যের জন্য জিতে নিয়েছে আর্টে ইন্টারন্যাশনালের নগদ পুরস্কার।

‘মেড ইন বাংলাদেশ’-এ মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন রিকিতা নন্দিনী শিমু, দীপান্বিতা মার্টিন, মায়াবী মায়া, নভেরা রহমান ও পারভীন পারু। এছাড়াও দেখা যাবে মুস্তাফা মনোয়ার, শতাব্দী ওয়াদুদ, জয়রাজ, মোমেনা চৌধুরী, ওয়াহিদা মল্লিক জলি ও সামিনা লুৎফা। দুটি অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেছেন মিতা চৌধুরী ও ভারতের শাহানা গোস্বামী। চলতি বছরে সুবিধাজনক সময়ে ছবিটি আসতে পারে বড় পর্দায়।

সাপলুডু : নায়ক আরিফিন শুভ ও নায়িকা মীম দুজনেরই গেল বছরটা অনুকূলে ছিল না। তাদের দুজন অভিনয় করেছেন ‘সাপলুডু’তে। ছোটপর্দার নামী নাট্যনির্মাতা গোলাম সোহরাব দোদুল ‘সাপলুডু’ দিয়ে প্রথমবার বড় পর্দায় আসছেন। ২৭ অক্টোবর থেকে মানিকগঞ্জে শুরু হয়েছিল সাপলুডু ছবির শুটিং। তারপর গাজীপুর ও কক্সবাজারের বিভিন্ন লোকেশনে শুটিংয়ের পর ৩ ডিসেম্বর শেষ হয়েছে এর কাজ। ছবির শুটিংয়ের শুরু থেকে লুক বা স্ত্রিরচিত্র যেন ফাঁস না হয় সেদিকে নজর দেয়া হয়েছিল। তারপর নায়ক শুভ বলেছিলেন, যখন লুক বা ট্রেলার আসবে দর্শক বুঝবেন আমরা কি করেছি সাপলুডুর জন্য।

এসব কারণেই চলতি বছরে ‘সাপলুডু’র জন্য প্রতীক্ষায় আছে দর্শক।

দাগ হৃদয়ে: ভালোবাসা দিবসে মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে বাপ্পী চৌধুরী, বিদ্যা সিনহা মীম ও আঁচল অভিনীত ছবি ‘দাগ হৃদয়ে’। আগে এর নাম ‘দাগ’ থাকলেও সেন্সর হওয়ার পর পরিবর্তন করে রাখা হয়েছে ‘দাগ হৃদয়ে’। জানিয়েছেন এ ছবির নায়ক বাপ্পী। তার ভাষ্য, ‘দাগ হৃদয়ে’ দর্শকদের ছুঁয়ে যাওয়ার মতো ছবি। গানগুলো অসাধারণ। এ ছবি দিয়ে ২০১৯ সালে ফাইট শুরু করবো। ছবির পরিচালক তারেক শিকদার। বাপ্পী, মীম এবং আঁচল এই তিন তারকা নিয়ে মাল্টিকাস্টিংয়ের ছবি ‘দাগ’ মুক্তির পর বেশ আলোচনা হবে এমনটাই মনে করছেন ছবির সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।

বিউটি সার্কাস: গেল বছরে ‘দেবী’র পর নতুন ২০১৯ সালেও মাত করতে পারেন অভিনেত্রী জয়া আহসান। কারণ এ বছর মুক্তির প্রতীক্ষায় আছে বহুল প্রতীক্ষিত ছবি ‘বিউটি সার্কাস’। যা নির্মাণ করেছেন মাহমুদ দিদার। তিনি এ ছবির মাধ্যমে প্রথম চলচ্চিত্র নির্মাণ করলেন। ছবিতে জয়া আহসান সার্কাস কর্মী হিসেবে অভিনয় করেছেন। জয়া ও এবিএম সুমন ছাড়াও ছবিতে দেখা যাবে তৌকীর আহমেদ ও ফেরদৌসের মতো তারকা অভিনেতাদেরও। মুক্তির তারিখ চূড়ান্ত না হলেও চলতি বছরের যেকোনো সময় ছবিটি বড় পর্দায় আসতে পারে বলে জানিয়েছে ইমপ্রেস টেলিফিল্ম।

আব্বাস: চিত্রনায়ক নিরবের ছবি ‘আব্বাস’। সাইফ চন্দন পরিচালিত এ ছবিতে নিরবের নায়িকা আব্বাস। পুরাণ ঢাকার এক ছেলের গল্প নিয়ে গড়ে উঠেছে আব্বাসের গল্প। শুটিং শেষ। আগামী মার্চ অথবা এপ্রিল মাসে আব্বাস মুক্তি পাবে। শুটিং চলাকালে এ ছবিতে নিরবের লুক নজড় কেড়েছিল। অন্যদিকে ছেলেটি আবোলতাবোল মেয়েটি পাগল পাগল নির্মাণ করে সুমন কুড়িয়েছিলেন নির্মাতা চন্দন। তাই এ ছবি মুক্তির পর চলতি বছর আবার আলোচনায় আসতে পারেন নিরব।

এসব ছবির বাইরেও প্রযোজক জয়া আহসান ‘ফুড়ুৎ’ নামের একটি ছবি নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন, ‘দেবী’র পর হয়তো এটাও বক্স অফিসে দাপট দেখাতে পারে। এছাড়া ‘দেবী’র পরিচালক অনম বিশ্বাসও চলতি বছরে একটি সিনেমা নির্মাণের পরিকল্পনা করছেন।

এছাড়াও অমিতাভ রেজার ‘রিক্সা গার্ল’, কাজী হায়াতের ‘বীর’, মোস্তাফিজুর রহমান মানিকের ‘আনন্দ অশ্রু’ ইত্যাদি ছবিগুলোও যদি চলতি বছর মুক্তি পায়, তবে এগুলো নিয়েও সারা বছর ঢাকাই সিনেমায় আলোচনা হতে পারে।

এর বাইরে গত বছরের ছবি বেপরোয়া রয়েছে মুক্তির অপেক্ষায়। সেটিও হতে পারে এ বছরের অন্যতম আলোচিত ছবি। এছাড়া রায়হান রাফী, বুলবুল বিশ্বাস, হিমেল আশরাফ, সৈকত নাসিরের মতো নতুন নির্মাতা এ বছর সিনেমা নির্মাণ করতে যাচ্ছেন। যদিও তারা এখনই বিস্তারিত জানাননি। ধারণা করা হচ্ছে, তরুণ এই নির্মাতারা ছবি বানালে সাড়া ফেলতে পারে তাদের ছবিগুলোও। ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর পরবর্তী সিক্যুয়াল আসার খবরও শোনা যাচ্ছে, এছাড়া চিত্রনায়ক সিয়ামকে নিয়ে নতুন একটি সিনেমা নির্মাণের পরিকল্পনা করছেন ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর নির্মাতা দীপঙ্কর দীপন। এখন শুধু অপেক্ষার পালা।

বিজ্ঞাপন