চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নতুন বছরে আরও তারুণ্য চান রোনালদো

নতুন বছর, নতুন আশা। নতুন সব স্বপ্ন নিয়ে নববর্ষকে গ্রহণের অপেক্ষায় থাকে মানুষ। ২০২০ সাল ছিল দুঃস্বপ্নের মতো, ২০২১ তাই পুরনো বছরের যত অপ্রাপ্তিকে মুছে জীবনকে রাঙানোর মঞ্চ। সারাবিশ্বের মানুষেরই প্রত্যাশা থাকে আকাশচুম্বী। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোও ব্যতিক্রম নন, নতুন বছরে তার প্রত্যাশা নিজের যৌবনকে ধরে রেখে সর্বোচ্চ পর্যায়ে আরও কয়েক বছর খেলে যাওয়া।

৩৫ বছরেও রোনালদোর এমন চাওয়া অবাক করার মতো নয়। এই বয়সে নিজের ফিটনেস যেভাবে ধরে রেখেছেন, ইউরোপিয়ান ফুটবলে অবলীলায় আরও তিন থেকে চার বছর পর্যন্ত খেলে যেতে পারবেন স্বাচ্ছন্দ্যে। ৩৯ বছর বয়সে যেমন এসি মিলানে দাপটে খেলে চলেছেন সুইডিশ তারকা জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ।

বিজ্ঞাপন

‘এখানে বয়সের কোনো ব্যাপার নেই। এখানে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে ইচ্ছা। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নিজে ঠিক থাকলে এটা কোনো সমস্যাই না। কেউ জানে না আগামীকাল কী হবে। আমি আছি বর্তমানে।’ বিবিসি স্পোর্টকে সাক্ষাৎকারে ইচ্ছার কথাগুলো এভাবে জানিয়েছেন রোনালদো।

বিজ্ঞাপন

‘বর্তমান মুহূর্তটা ভালো, উপভোগ করছি। ভীষণ ক্ষুরধার আর সুখী মনে করছি। আশা করছি আরও অনেক অনেক বছর খেলে যেতে পারবো। দেখছি ভবিষ্যৎ খুব উজ্জ্বল, এতে সুখ অনুভব করছি।’

২০২০ সালে কম-বেশি দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে সবাইকেই। মহামারী করোনাভাইরাসে খেলা বন্ধ ছিল কয়েকমাস। পরে খেলা শুরু হলেও মাঠে ঢোকার অনুমতি পাননি দর্শকরা। দর্শকদের মাঠে না দেখে মনটা খারাপ হয়েছে রোনালদোর।

‘দর্শকছাড়া স্টেডিয়াম দেখতে আমার ভালো লাগে না। অনেকটা এরকম যে সার্কাস দেখতে গেলেন, কিন্তু কোনো ভাঁড়কে দেখা হল না।’

‘আশা করছি খুব শীঘ্রই স্টেডিয়ামের দরজা খুলে যাবে। আমাদের এই মহামারীকে মেনেই চলতে হবে, চেষ্টা করতে হবে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার। তবে নিয়ম কানুনকেও মান্য করতে হবে। কিন্তু দর্শক ছাড়া খেলা আমার একদমই পছন্দ না।’