চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ধোনির ‘ভয়ে’ সিদ্ধান্ত পাল্টে সমালোচনায় আম্পায়ার

ওয়াইড দিতে হাত তুলতেই উইকেটের পেছন থেকে কড়া দৃষ্টিতে তাকালেন মহেন্দ্র সিং ধোনি, ঠোঁট নেড়ে কিছু একটা বললেনও। চোখ রাঙানিতে ভড়কে যেয়েই কিনা ওয়াইড দিতে গিয়েও দিলেন না আম্পায়ার পল রাইফেল। যা নিয়ে এখন বইছে সমালোচনার ঝড়।

মঙ্গলবার চেন্নাই সুপার কিংস ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ম্যাচে ঘটেছে এমন ঘটনা।

বিজ্ঞাপন

চেন্নাইয়ের ১৬৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শেষ দুই ওভারে ২৭ দরকার ছিল হায়দরাবাদের। আগের ওভারে করন শর্মা ১৯ রান দেয়ায় বেশ খেপে ছিলেন ধোনি, ১৯তম ওভারের জন্য বল তুলে দেন শার্দুল ঠাকুরের হাতে। প্রথম তিন বলে দুটি সিঙ্গেল ও ওয়াইড দিয়েছিলেন ঠাকুর। পরের বলটিও ছিল পরিষ্কার ওয়াইড, হাতও তুলেছিলেন আম্পায়ার রাইফেল।

কিন্তু ধোনির হাবভাব দেখে তিনি ওয়াইডের নির্দেশ দেয়া থেকে বিরত থাকেন। রিপ্লেতে দেখা গেছে বল ওয়াইড ছিল। কিন্তু ধোনির প্রতিক্রিয়ার প্রেক্ষিতে আম্পায়ার ওয়াইড দেননি।

বিজ্ঞাপন

এরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনা শুরু হয় ধোনির। একজন লিখেছেন, ‘যদি ধোনিই সবকিছু ঠিক করবেন, তা হলে আর আম্পায়ারদের রাখা হচ্ছে কেন? আম্পায়ারকে ক্রিকেটার বলে দিচ্ছে যে কী করতে হবে! এমনটা দেখতে আমরা অভ্যস্ত নই।’

আরেকজন লিখেছেন, ‘ধোনি আম্পায়ারকে কিনে নিয়েছেন। আর এমন ঘটনা এই প্রথম হল না।’

‘ধোনি স্টাম্পের পিছনে থাকলে ব্যাটসম্যানরা নয়, চাপে থাকেন আম্পায়ারই।’ এক ক্রিকেটপ্রেমীর মত এমনই।

‘যদি এলিট প্যানেলে থাকা পল রাইফেল, যিনি কিনা বিশ্বকাপ জিতেছেন এবং ১২৭ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন, তিনি ধোনিকে দেখে সিদ্ধান্ত পাল্টান, তবে ভারতীয় আম্পায়ারদের দোষ দিয়ে লাভ নেই। এটা দুর্বল আম্পায়ারিং।’ আরেকজনের সোজাসাপ্টা মন্তব্য।

রাইফেলকে তুলোধুনো করে একজন আবার লিখেছেন, ‘জঘন্য আম্পায়ারিং। ধোনির চাপে ওয়াইড দেয়া হল না। আর এটাই প্রথম নয়। সব সময়ই ধোনি চাপে রাখে আম্পায়ারদের। এটাই বিস্ময়কর যে এর থেকে শিক্ষা নেয়া হয় না। এটা কীভাবে ওয়াইড না হয়ে যায়?’