চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দ্বিতীয় বিয়ে করলেন সংগীতশিল্পী মিলন মাহমুদ

১০ ডিসেম্বর মিলন মাহমুদের বাসায় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়

গায়ক ও সংগীত পরিচালক মিলন মাহমুদ দ্বিতীয়বারের মতো বিয়ে করলেন। পাত্রী সাভারের মেয়ে সুমাইয়া জামান। লেখাপড়া করছেন লালমাটিয়া মহিলা কলেজের বিবিএ দ্বিতীয় বর্ষে।

১০ ডিসেম্বর (সোমবার) বিকেল ৩ টায় এই শিল্পীর বাসায় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে বলে চ্যানেল আই অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন স্বয়ং মিলন মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে মিলন মাহমুদ বলেন, ছয়মাস ধরে সুমাইয়া জামানের সঙ্গে আমার পরিচয়। এরপর কথাবার্তা ও মেলামেশার মাধ্যমে আমি বুঝেছি সে সত্যি সত্যি আমাকে ভালোবাসে। তার মধ্যে লোভ এবং ফেক কিছু আমি খুঁজে পাইনি। এরপর একমাস আগে দুজনেই বিয়ের সিদ্ধান্ত নেই। গত সোমবার আমাদের বিয়ে হয়েছে।

Advertisement

স্ত্রী সুমাইয়া জামান তার নব বিবাহিত স্বামী মিলন মাহমুদকে চেনেন, তিনি যখন ছোট ছিলেন তখন থেকে। চ্যানেল আই অনলাইনকে সুমাইয়া বললেন, যখন ক্লাস সিক্সে পড়ি তখন থেকেই তার গান শুনি। একদিন স্কুল থেকে ফিরে টেলিভিশনে তার গান শুনতে শুনতে মাকে বলেছিলাম, এই শিল্পীকে ভালো লাগে। দেখতেও হ্যান্ডসাম। তাকে বড় হলে বিয়ে করবো! মা বকা দিয়েছিল।

সুমাইয়া জামান বলেন, গত এপ্রিলে তার সঙ্গে পরিচয় হলো। ফেসবুকের কল্যাণে নিয়মিত কথাবার্তা হতো। মিলনের সততা আমাকে মুগ্ধ করেছে। তার অতীত সম্পর্কে আমাকে সবকিছুই জানিয়েছে। মনে হয়েছে, তার সঙ্গে সারাজীবন কাটাতে পারবো। অবশেষে তাকে আমি পেয়েছি। আমাদের দুজনার জন্য সবাই দোয়া করবেন।

এর আগে ২০১৫ সালের ১মে মৌরী রহমানকে বিয়ে করেছিলেন মিলন মাহমুদ। শিল্পী মিলন মাহমুদ জানান, আড়াই বছর আগে প্রথম সংসার ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। তিনি বলেন, অতীত ভুলে বর্তমানকে নিয়ে আগামীর দিনগুলো সুন্দরভাবে কাটাতে চাই। সবার শুভকামনা ও দোয়া কামনা করছি।

গানের ভুবনে ২০০৫ সালে আগমন ঘটে মিলন মাহমুদের। ‘চলো সবাই’ গান দিয়ে সবার মাঝে ব্যাপক পরিচিতি পান তিনি। তার প্রথম একক অ্যালবাম ‘ধ্যান’। এখন পর্যন্ত তার নয়টির মতো একক গানের অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে। তার সর্বশেষ একক গানের অ্যালবাম ‘অচেনা শহর’ প্রকাশিত হয় ২০১৪ সালে। মিলন মাহমুদের গাওয়া ‘স্বপ্ন যাবে বাড়ি’ গানটিও বেশ শ্রোতাপ্রিয়তা পায়।