চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দেশে নতুন ধরনের করোনাভাইরাস শনাক্ত

করোনাভাইরাস এর নতুন ধরন (স্ট্রেইন) বাংলাদেশে শনাক্ত হয়েছে, যেটির সঙ্গে সম্প্রতি যুক্তরাজ্যে পাওয়া নতুন ধরনের করোনাভাইরাসের সাদৃশ্য রয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশের বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ (বিসিএসআইআর) এর বিজ্ঞানীরা।

গত মাসে ১৭টি নতুন জিনোম সিকোয়েন্স পরীক্ষা করে পাঁচটিতে করোনাভাইরাসের নতুন ধরনের এই স্ট্রেইন শনাক্ত করেন তারা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিসিএসআইআর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. সেলিম খান চ্যানেল আই অনলাইনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

যুক্তরাজ্যে সম্প্রতি করোনাভাইরাসের নতুন যে স্ট্রেইন পাওয়া গেছে, সেটি আগের স্ট্রেইনটির তুলনায় ৭০ শতাংশ বেশি গতিতে ছড়ায় বলে জানানো হয়।

ড. সেলিম খান বলেন, নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে করোনাভাইরাসের সর্বশেষ যে সিকোয়েন্স করা হয়েছে, তাতে ভাইরাসটির দুটি স্পাইকে প্রোটিন মিউটেশন পাওয়া যায়।

বিজ্ঞাপন

যুক্তরাজ্যে শনাক্ত নতুন ভাইরাসটির স্ট্রেইনে যে বৈশিষ্ট্য আছে, তার সাথে বাংলাদেশে পাওয়া ভাইরাসটির পুরোপুরি মিল না থাকলেও অনেকটাই মিল রয়েছে বলে জানান তিনি।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন শনাক্তের পর আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে ইউরোপজুড়ে। নতুন ধরনের এই কোভিড ভাইরাস ক্ষণে ক্ষণে রূপ বদল করতে পারে, জন্ম দিতে পারে নতুন ভাইরাসের।

গবেষকরা বলছেন, নতুন এই ভাইরাসটি ৭০ শতাংশ দ্রুত ছড়ায়। একমাস আগে নভেম্বরেও যেখানে যুক্তরাজ্যে আক্রান্তদের চারভাগের একভাগ এই নতুন প্রজাতির ভাইরাসে আক্রান্ত ছিল বর্তমানে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে সেটা বেড়ে দাঁড়িয়েছে দুই তৃতীয়াংশে।

নতুন প্রজাতির ভাইরাসটি বেশি বেশি দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে কারণ, নতুন এই প্রজাতিটি ভাইরাসের অন্য প্রজাতিকে প্রতিস্থাপন করে দিচ্ছে। এটির বিভাজন বা রূপান্তর ভাইরাসের কিছু অংশে পরিবর্তন আনে, যা গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া ল্যাব পরীক্ষায় দেখা গেছে এসব বিভাজনের মধ্যে বেশ কিছু মানুষের দেহের কোষকে সংক্রমিত করার কাজে ভাইরাসের সক্ষমতা বাড়ায়। এসব বৈশিষ্ট্যর কারণে ভাইরাসটি সহজে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

ফলে নতুন প্রজাতিটি উপযুক্ত পরিবেশ পেলে দ্রুত হারে ছড়িয়ে পড়তে পারে।

অন্যদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) অবশ্য নতুন ভাইরাস নিয়ে শঙ্কিত না হয়ে বিশ্ববাসীকে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে।