চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দেশজুড়ে মানবিক সহায়তায় সেনা, বিমান ও নৌবাহিনী

করোনা মোকাবেলায় দেশব্যাপী দুঃস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে কাপড় ও খাদ্য সামগ্রী সহায়তায় নিজেদের নিয়োজিত রেখেছে বাংলাদেশ সেনা, বিমান ও নৌবাহিনী।

আজ মঙ্গলবার রংপুর ও বগুড়ায় সেনাবাহিনীর ব্যবস্থাপনায় র্কমহীন অসহায় এবং
দুঃস্থদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। বিমান বাহিনীর বিভিন্ন ঘাঁটি/ইউনিট কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবেলায় এতিম ও দুঃস্থ শিশুদের মধ্যে ঈদ উপহার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণসহ মানবিক সহায়তামূলক বিভিন্ন কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। দেশব্যাপী দুঃস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে ঈদ উপলক্ষে কাপড় ও খাদ্য সহায়তা দিয়েছে  নৌবাহিনী।

আজ মঙ্গলবার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য দেওয়া হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশে চলমান করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদের নির্দেশে রংপুর সেনানিবাস সংলগ্ন পার্শ্ববর্তী এলাকা ও কেরানির হাট হাইস্কুল মাঠে ৩০০টি কর্মহীন অসহায় এবং দুঃস্থ পরিবারের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া, আজ বগুড়া সেনানিবাস সংলগ্ন বীরগ্রাম এলাকায় ২৫০টি কর্মহীন অসহায় এবং দুঃস্থ পরিবারের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। ত্রাণ সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে চাল, ডাল, চিনি, তেল, আটা ছোলা, আলু, পেঁয়াজ, সাবান ও লবণসহ নিতা প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী।

বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাতের দিক নির্দেশনায় বিমান বাহিনী ঘাঁটি জহুরুল হক, চট্টগ্রাম ঘাঁটির পাশ্ববর্তী ৪০ নং ও ৪১ নং ওয়ার্ডে অন্তর্গত বিভিন্ন মাদ্রাসা ও এতিমখানার ৩০৪ জন এতিম ও দুস্থ ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে পাঞ্জাবী, পাজামা ও থ্রী-পিচসহ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এছাড়াও, ঘাঁটিতে কর্মরত অস্থায়ী বেসামরিক কর্মচারীদের মাঝে পাঞ্জাবী ও শাড়ী বিতরণ করা হয়। বিমান বাহিনী র‌্যাডার ইউনিট, বগুড়া কর্তৃক ইউনিটের পাশ্ববর্তী বারপুর এলাকার বিভিন্ন মাদ্রাসার ৫০ জন এতিম ও দুস্থ ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে পাঞ্জাবি, পাজামা, টুপি ও থ্রী-পিসসহ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

নৌবাহিনীর কমান্ডার চট্টগ্রাম এর তত্ত্বাবধানে চট্টগ্রামের পতেংগা এলাকায় ৫০০ গরীব, দুঃস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে শাড়ী, লুঙ্গী, পাঞ্জাবিসহ বিভিন্ন বয়সের বাচ্চাদের ইদের পোষাক তুলে দেয়া হয়।

এছাড়া নারায়ণগঞ্জের পাগলায় ৪০০ পরিবারের মাঝে এবং নারায়ণগঞ্জ ডকইয়ার্ডের তত্ত্বাবধানে স্থানীয় ৫০০ গরীব, দুঃস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, তেল, আটা, লবণ, সেমাই, দুধ, চিনি ও সাবানসহ বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

বিজ্ঞাপন