চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দুর্গোৎসবের আয়োজন নিরাপদ হোক

স্বাস্থ্যবিধি মেনে সাত্ত্বিক পূজায় সীমাবদ্ধ রেখে শুরু হচ্ছে সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা। করোনা অতিমারির কারণে এবারের আয়োজনে থাকছে না আগের বছরগুলোর মতো জমকালো ভাব।

আজ ষষ্ঠী পূজার মধ্যদিয়ে শুরু হবে পাঁচদিনের পূজা যা আগামী ২৬ অক্টোবর সোমবার বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হবে। বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের এবং সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি পরিপূর্ণভাবে মেনে ধর্মীয় বিধিবিধান সমুন্নত রেখে দুর্গাপূজার আয়োজন ও অংশগ্রহণের জন্য সনাতন সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের দেয়া সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, এ বছর সারাদেশে ৩০ হাজার ২শ ২৩টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গত বছর সারাদেশে দুর্গাপূজার মণ্ডপের সংখ্যা ছিল ৩১ হাজার ৩৯৮টি। গতবছরের তুলনায় এবার ১হাজার ১শ ৭৫টি মণ্ডপে পূজা কম হচ্ছে।

অতীতে পূজাকে কেন্দ্র করে নানা ধরণের নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড দেখা গেলেও সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সেসব ঘটনা অনেকটাই কমতে শুরু করেছে। সাধারণ জনগণ ও সরকারের আন্তরিক চেষ্টায় তা সম্ভব হয়েছে বলে আমরা মনে করি।

পূজা উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের প্রতিটি পূজামন্ডপের নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশ, আনসার, র‌্যাবসহ অন্যান্য আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি প্রায় প্রতিটি মণ্ডপে স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী দায়িত্ব পালন করবে। আনন্দ আয়োজনে অতিরিক্ত জনসমাগম যেন করোনার কারণে পরবর্তীতে বিষাদে পরিণত না হয়, সেদিকেও সবার সচেতনতা প্রয়োজন। দুর্গোৎসবের আয়োজন যেন সুন্দর ও নিরাপদ হয়, সেদিকে সংশ্লিষ্ট সবাই নজর রাখবেন বলে আমাদের আশাবাদ।