চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দুই সপ্তাহ পর সোনার খনিতে আটকা পড়া ১১ শ্রমিক উদ্ধার

চীনে সোনার খনিতে ৬০০ মিটার গভীরে আটকে পড়া ১১ জীবিত শ্রমিককে দুই সপ্তাহ পর উদ্ধার করেছেন দেশটির উদ্ধারকারী দল।

রোববার সকালে প্রথমজনকে উদ্ধারের ঘণ্টাখানেক পর ১০ জনকে খনির বিভিন্ন সেকশন থেকে উদ্ধার করা হয়।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিবিসি জানায়, গত ১০ জানুয়ারি চীনের শ্যানডং প্রদেশের হুশান স্বর্ণখনিতে একটি বিস্ফোরণের ফলে ২২ জন শ্রমিক আটকা পড়েন। এই দুর্ঘটনার এক সপ্তাহ পর কর্তৃপক্ষ ১১ জন শ্রমিকের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদেরকে উদ্ধার করতে পেরেছে দেশটির উদ্ধারকারী দল।  বাকী যে ১১ জন রয়েছে তাদের মধ্যে একজন পরবর্তীতে মারা যায় এবং ১০ জনের সাথে এখনো যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

সিসিটিভির ওয়েইবো মাইক্রোব্লগ সাইট একটি পোস্টে জানা যায়, যে শ্রমিককে উদ্ধার করা হয়েছে সে প্রচণ্ড দুর্বল। তাকে উদ্ধারের পর তাৎক্ষণিক ভাবেই হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।  আরেকজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

বিজ্ঞাপন

বেঁচে যাওয়া শ্রমিকরা উদ্ধারকারীদের জানান: তাদের অবস্থানের আরও একশ মিটার গভীরে একজন শ্রমিকের সঙ্গে তারা যোগাযোগ করতে পেরেছিলেন। কিন্তু পরে তার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

বিবিসি আরও জানায়, আটকে পড়া বাকিদের অবস্থা সম্পর্কে কর্তৃপক্ষ এখনও কিছু জানতে পারেনি। খনির অন্যান্য অংশে খাবার এবং বার্তা আরও নিচে পৌঁছানোর পরেও তাদের সঙ্গে এখন পর্যন্ত কোনো যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এবিষয়ে ডু বলেন, খনির সিক্সথ সেন্টারাল সেকশনে আটকে থাকা বাকী শ্রমিকদের উদ্ধারকারী দল  কখন উদ্ধার করতে পারবে তা এখনো জানা সম্ভব হয়নি।

তবে কেন ওই স্বর্ণখনিতে বিস্ফোরণ হয়েছিল সেই কারণ এখনও জানা যায়নি। একটি ছোট ছিদ্রের মাধ্যমে তাদের কাছে খাদ্য ও ওষুধ পাঠানো হচ্ছে।