চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দুই সন্তানকে হত্যা করে বাবার আত্মহত্যা

কারখানাটি ছয় মাস আগে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বেকার হয়ে পড়ে মধু মালানিকে। কিন্তু সামনে তার জীবনে কি ঘটতে যাচ্ছে সেটা কেউ আন্দাজ করতে পারেনি। হতাশা থেকে মালানি হত্যা করে তার দুই সন্তানকে। এরপরেই মেট্রো রেলের সামনে ঝাঁপ দিয়ে তিনি আত্নহত্যা করেন।

ভারতের দিল্লির শালিমার বাগে এমনই একটি মর্মান্তিক ঘটনার কথা জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি গত রোববারে।

বিজ্ঞাপন

দিল্লি পুলিশ জানায়: মধু মালানির পরিবারটি তার আয়ের ওপরেই চলতো। কিন্তু হঠাৎ চাকরি চলে যাওয়ায় তিনি বেশ হতাশাগ্রস্ত ছিলেন। নিজের ছেলেমেয়ের চাহিদা পূরণ করতে পারছিলেন না দেখে এই মর্মান্তিক ঘটনার জন্ম দেন।

পুলিশ আরও জানায়: রোববার সন্ধ্যায় একটি জরুরি ফোনে দিল্লির শালিমারে একটি বাড়িতে গিয়ে দুইটি মৃতদেহ উদ্ধার করে তারা। প্রত্যক্ষদর্শীদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, মৃতদেহের মধ্যে মেয়ে সামিকসার বয়স ১৪ এবং ছয় বছরের ছেলে শ্রেয়ান্স। তাদের শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে এবং তাদের নিজ নিজ বিছানায় তাদের মরদেহ পাওয়া গেছে।

ঘটনার দিন পুলিশ বাবা মালানিকে খুঁজতে থাকলে তার মরদেহ উদ্ধার করে হায়দারপুর মেট্রো স্টেশন থেকে। তবে আত্মহত্যার আগে কোন নোট লিখে যাননি তিনি।

পুলিশ জানায়: মালানির স্ত্রী রুপালি ঘটনার সময় শপিং সেন্টারে ছিলেন। তিনি ফিরে এসে তার দুই ছেলে মেয়ের মরদেহ দেখতে পান। তখনও স্বামী মালানি নিখোঁজ ছিলেন।

তবে দিল্লির দুই জায়গায় হত্যার ঘটনা ঘটায় তদন্ত করছে হায়দারপুর এবং শালিমার পুলিশ। প্রাথমিক ধারণায় পুলিশ জানিয়েছে হতাশা থেকেই সন্তানকে হত্যা করে নিজেই আত্মহত্যা করেছেন মালানি। সঠিক কারণ তদন্ত প্রতিবেদনের পরে জানা যাবে বলে আশ্বস্ত করেন পুলিশ।

বিজ্ঞাপন