চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দুই মাস যাবৎ নিখোঁজ জ্যাক মা

দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে চীনা ধনকুবের জ্যাক মা’কে জনসম্মুখে দেখা যাচ্ছে না। তিনি বর্তমানে কোথায় অবস্থান করছেন তা কেউ জানে না।

সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল সিএনএন-এর এক প্রতিবেদনে জ্যাক মা’র অন্তর্ধানের ব্যাপারে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এর আগে, অক্টোবরে চীনের ব্যাংক ব্যবস্থা নিয়ে কঠোর সমালোচনা করেন জ্যাক মা। তার কয়েক সপ্তাহ পর থেকে তাকে আর জনসম্মুখে দেখা যায়নি।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় ‘দ্য এপ্রেনটিস’ টিভি শোর আদলে জ্যাক মা চালু করেন ‘আফ্রিকা’স বিজনেস হিরোজ’ নামের একটি অনুষ্ঠান। সেই অনুষ্ঠানে তরুণ আফ্রিকান উদ্যোক্তাদের মধ্যে ব্যবসায়িক উদ্ভাবনী ক্ষমতা নিয়ে প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। আর বিজয়ী পান ১৫ লাখ মার্কিন ডলারের আকর্ষণীয় আর্থিক পুরস্কার।

কিন্তু, ওই অনুষ্ঠানের চূড়ান্ত রাউন্ডেও উপস্থিত ছিলেন না জ্যাক মা। বিচারক প্যানেলের ওয়েবপেজ থেকেও সরিয়ে নেওয়া হয়েছে এই চীনা ধনকুবেরের নাম। এমনকি অনুষ্ঠানের প্রমোশনাল ভিডিওতে তার অংশটুকু কেটে বাদ দেওয়া হয়েছে।

যে কারণে, তিনি আদৌ মুক্ত নাকি গৃহবন্দি তা নিয়েও শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে, আলিবাবা’র একজন মুখপাত্রের বরাতে ডেইলি মেইল জানিয়েছে, ওই সময়ে ব্যস্ত থাকার কারণে জ্যাক মা বিচারক প্যানেলে উপস্থিত থাকতে পারেননি। তবে এই বিবৃতিকে বিশ্বাসযোগ্য মনে করছেন না অনেকেই।

ওদিকে, চীনের সবচেয়ে সফল এই উদ্যোক্তা এক সময় রাজনীতিবিদদের প্রিয়পাত্র ছিলেন। কিন্তু, সম্প্রতি জ্যাক মা সেই সুনজর হারিয়েছেন। বিশেষ করে, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নীতিমালা নিয়ে সমালোচনা করার পর থেকেই একের পর এক আক্রমণের মুখে পড়েছে আলিবাবা এবং তার আরেক প্রতিষ্ঠান অ্যান্ট গ্রুপ (আলি পে)।

এরই মধ্যে, অ্যান্ট গ্রুপের ৩৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের আইপিও স্থগিত করেছে সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ। তারপর থেকেই জ্যাক মাকে আর জনসম্মুখে দেখা যায়নি বলে জানিয়েছে ডেইলি মেইল।

জ্যাক মা চীনের বৃহত্তম প্রযুক্তি সংস্থা আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা। আলিবাবা এখন ‘পুবের আমাজন’ নামে পরিচিত। চীনের বন্দরনগরী হ্যাংঝুর ছোট্ট একটা অ্যাপার্টমেন্ট ঘর থেকে তিনি এই কোম্পানি গড়ে তোলেন। ১৯৯৯ সালে চীনের কারখানা অধ্যুষিত এলাকার কেন্দ্রে ছিল এই হ্যাংঝু শহর।

এরপর ধীরে ধীরে আলিবাবা পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ চীনের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে অন্যতম প্রভাবশালী একটি সংস্থায় পরিণত হয়। চীনের অনলাইন, ব্যাংকিং এবং বিনোদন জগতে তাদের অবদান হয়ে ওঠে বিশাল।। চার হাজার কোটি ডলারের ব্যবসার মালিক হয়ে ওঠেন জ্যাক মা।

২০১৮ সালে আলিবাবার চেয়ারম্যানের পদ থেকে তিনি সরে দাঁড়ান। তিনি বলেন, তিনি দানধ্যান নিয়ে থাকতে চান। কিন্তু আলিবাবার পরিচালনা বোর্ডে তাঁর স্থায়ী পদ থেকে যায়। শুধু সম্পদ আর খ্যাতি নয়, মা চীনের অন্যতম প্রভাবশালী একজন ব্যক্তি।