চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দুই নবজাতকের লাশ নিয়ে হাইকোর্টে এক পিতা

অমানবিকতার করুণ সাক্ষী হয়ে নিজের দুই মৃত নবজাতককে বুকে করে হাইকোর্টে এলেন এক পিতা। হৃদয় বিদারক এই ঘটনার কথা জেনে দৃষ্টান্ত তৈরি করে আদেশ দিলেন দেশের উচ্চ আদালত।

রাজধানীর মান্ডায় বাসা করে থাকেন সুপ্রিম কোর্টের অফিস সহায়ক আবুল কালাম আজাদ। রোববার সকালে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী সায়েরা খাতুন অসুস্থবোধ করেন। তখন স্ত্রীকে নিয়ে মুগদা ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে যাওয়ার পথে সিএনিজিতেই ২টি সন্তান প্রসব করেন সায়েরা।

বিজ্ঞাপন

পরে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে স্ত্রীকে ভর্তি করান আজাদ। তখন সেই হাসপাতালের পক্ষ থেকে বলা হয়, জমজ শিশু দুটি অপরিপক্ক থাকায় তাদের আইসিইউতে নেওয়া দরকার। কিন্তু তাদের হাসপাতালে আইসিইউ না থাকায় আইসিইউ থাকা কোনো হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলা হয়।

এরপর বাবা দুই নবজাতককে অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকা শিশু হাসপাতালে নিয়ে যান। দীর্ঘক্ষণ সেখানে থাকার পর শিশু হাসপাতাল থেকে জানানো হয় তাদের আইসিইউ বেড খালি নাই। আর নরমাল বেডে ভর্তি করতে প্রতি বাচ্চার জন্য দিনে ৫ হাজার করে টাকা করে লাগবে।

বিজ্ঞাপন

সেখান থেকে দুই নবজাতককে নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নিয়ে যান বাবা আবুল কালাম আজাদ। একপর্যায়ে এই হাসপাতালের পরিচালকের ব্যক্তিগত সহকারীর সাথে যোগাযোগের পর একজন ডাক্তার অ্যাম্বুলেন্সে থাকা নবজাতকদের দেখে জানান, দুই নবজাতক আর বেঁচে নেই। এরপর মৃত দুই সন্তানকে নিয়ে হাইকোর্টে আসেন সেই বাবা।

এই ঘটনাকে হৃদয়বিদারক বলে উল্লেখ করেন বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

পুরো বিষয় শুনে হাইকোর্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা শিশু হাসপাতাল এবং ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল মুগদার পরিচালককে আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এ বিষয়ে ব্যাখা দিতে নির্দেশ দেন।

সেই সাথে চিকিৎসা অবহেলায় সংশ্লিষ্টদের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

আদেশের বিষয়টি সাংবাদিকদের জানান, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।