চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দীপনের ‘অন্তর্জাল’ এ চুক্তিবদ্ধ সিয়াম

“আগামীর যুদ্ধটা হবে সাইবারে, কতটা প্রস্তুত আমাদের যোদ্ধারা”- এই মূলভাবনা নিয়ে নির্মিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের প্রথম সাইবার থ্রিলার চলচ্চিত্র ‘অন্তর্জাল’। আইসিটি ডিভিশন এর উদ্যোগে নির্মিত ‘অর্ন্তজাল’ চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করবেন দীপংকর দীপন।

ফেব্রুয়ারিতে চ্যানেল আইয়ের একটি পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এই চলচ্চিত্রটির ঘোষণা দেন বাংলাদেশের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এরই ধারাবাহিকতায় শুরু হয়েছে চলচ্চিত্রের শুটিংয়ের চূড়ান্ত প্রস্তুতি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দীপনের ‘অন্তর্জাল’ এ কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করছেন সিয়াম আহমেদ।

সিয়াম আহমেদের চরিত্রের নাম লুমিন। যে রাজশাহীর একজন তরুণ কম্পিউটার প্রোগ্রামার। চাকরির জন্য সিভি নিয়ে অন্যের কাছে না ঘুড়ে নিজেই একটি স্টার্ট আপ বানিয়ে অন্যদের চাকরি দেয়ায় বিশ্বাস করে আইটি জিনিয়াস লুমিন। তবে চরিত্রটি সরল নয়, একটু জটিল মনস্তত্বের।

‘অন্তর্জাল’ এ চুক্তিবদ্ধ চিত্রনায়ক সিয়াম আহমেদ

বিজ্ঞাপন

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ৭ জুন সন্ধ্যায় এই চলচ্চিত্রের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান মোশন পিপল স্টুডিওস এর অফিসে সিয়াম আহদেমের সাথে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অন্তর্জাল এর প্রযোজক মোহাম্মদ আলী হায়দার ও সাদেকুল আরেফিন এবং সহ: প্রযোজক শাহ আমীর খসরু। সেই সাথে ছিল টিম অন্তর্জাল।

আইসিটি ডিভিশনের ‍উদ্যোগে নির্মিত এই চলচ্চিত্রটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান মোশন পিপল স্টুডিও। সার্বিক সহযোগিতায় স্পেলবাউন্ড লিও বার্নেট।

আগামী ২৪ জুন থেকে ঢাকার বিভিন্ন লোকেশনে চলচ্চিত্রটির প্রথম পর্বের শুটিং শুরু হতে যাচ্ছে। পরিচালক দীপংকর দীপন জানান, আই সি টি ডিভিশনের সাথে আমরা ২০১৯ এর নভেম্বর থেকেই কাজ শুরু করেছি। চলচ্চিত্রে খুব জটিল টেকনিক্যাল বিষয়গুলো সহজভাবে তুলে ধরা এবং সাইবার ব্যবহারে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য আমরা খুব সাবধানে চিত্রনাট্য সাজিয়েছি।

তিনি বলেন, কাহিনী চিত্রনাট্য ও সংলাপে আমার সাথে আশা জাহিদ এবং সাইফুল্লাহ রিয়াদ কাজ করছে। দিনের পর দিন যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়ার টেকনোলিজি পার্কে থেকে আমরা চিত্রনাট্য লিখেছি। এই চলচ্চিত্রের প্রত্যেকটি চরিত্র বাস্তব কোন না কোন চরিত্র অবলম্বনে তৈরী, এজন্য আমাদের যথেষ্ট গবেষণার কাজ শুরু করতে হয়েছে। পর্যায়ক্রমে চলচ্চিত্রটির বিভিন্ন চরিত্রের সাথে খুব শিগগির চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে।

‘ঢাকা অ্যাটাক’ এর এই নির্মাতা জানান, গল্পের প্রয়োজনে দেশের বাইরেও চলচ্চিত্রটির বিভিন্ন অংশের দৃশ্যধারণ করা হবে। তবে কোভিড পরিস্থিতির কারণে এখনই বলা যাচ্ছে না কোন দেশে শুটিং এর কাজ চলবে।

বিজ্ঞাপন