চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দিন দিন আমার কাজের দর্শক বাড়ছে: সাফা কবির

মডেল, অভিনেত্রী সাফা কবির। ছোটপর্দায় তিনি পরিচিত মুখ। গত বছর অনেকগুলো নাটক, স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র, ওয়েব সিরিজ, গান ভিডিওতে কাজ করে নিজেকে পরিণত অভিনেত্রী হিসেবে প্রমাণের চেষ্টা করেছেন। বলা যায়, অনেকখানি সফলও হয়েছেন। অভিনয়ের ফাঁকে ফাঁকে মডেলিং ও উপস্থাপনা করেছেন। সাফা কবির তার সাম্প্রতিক কাজকর্ম নিয়ে কথা বলেছেন চ্যানেল আই অনলাইনের সঙ্গে:

২০১৮ সাল কেমন গেল?
গত বছর আমার কাজের অভিজ্ঞতা খুবই ভালো ছিল। কয়েকটি নতুন নতুন চরিত্রে কাজ করেছি। যেমন- আগে গ্রামের মেয়ের চরিত্রে কখনও কাজ করিনি। গত বছর করেছি। ওই চরিত্র দিয়ে আমি এক্সপেরিমেন্ট করতে পেরেছি, এক্সপ্লোর করতে পেরেছি। বিজয় দিবস উপলক্ষে প্রচার হওয়া কাজী সাইফ পরিচালিত ‘পতাকা’ নামে একটি নাটকে কাজ করেছিলাম। সেখানে আমার চরিত্র ছিল একেবারেই আলাদা। ভিকি জাহেদের পরিচালনায় ওয়েব সিরিজ ‘বাঘবন্দী’-তে কাজ করেছিলাম। ওটা ছিল আমার অভিনীত প্রথম ওয়েব সিরিজ। একেবারেই ভিন্ন চরিত্র। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রেও কাজ করেছি। এমন আরও অনেক নতুন নতুন চরিত্রে কাজ করেছি যেগুলোর নাম মনে আসছে না। এককথায়, গত বছর আমি নিজেকে অনেকখানি ভেঙেছি। একঘেয়েমি কাজ করিনি। তাই কাজের দিক থেকে ২০১৮ সাল আমার জন্য ছিল খুব লাকী।

বিজ্ঞাপন

ওয়েব সিরিজে কাজ করে কেমন সাড়া পেলেন?
বাঘবন্দী, উষ্ণের আত্মহত্যা এই দুটো ওয়েব সিরিজ অনেক আগেই করেছি। আমি যখন কাজ করেছি, তখন সেভাবে কেউ ওয়েব সিরিজ করতো না, এখন যেভাবে করছে। এই দুটো ওয়েব সিরিজ খুবই ভালো গেছে। নাটক, ওয়েব সিরিজ, স্বল্পদৈর্ঘ্য যাই হোক; ইউটিউবে যা আছে সেখান থেকে ভালো সাড়া পাই। টিভি যখন নাটক প্রচার হয়। তখন বুঝিনা ক’জন দেখছে। কিন্তু ইউটিউবে যখন আসে, তখন বুঝতে পারি কজন দেখলো। কতজন পছন্দ করলো, অপছন্দ করলো, বা দেখে কে কি বলল। তাই ইউটিউবে কোনো কাজ এলে আমি বেশী রেসপন্স পাই।

আপনি তো উপস্থাপনাও করেন…
ঠিক, তবে আমি নিয়মিত উপস্থপনা করি না। এর আগে দুটো অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করেছি। একটি ছিল বাচ্চাদের, অন্যটি সুন্দরী প্রতিযোগিতার। এ বছরের প্রথম দিনেই নতুন একটি কাজ করেছি উপস্থাপনায়। অনুষ্ঠানের নাম ‘তীর লিটিল শেফ’। এখানে ছোট ছোট বাচ্চারা মজার মজার রান্না করে। বেশ গোছানো এবং মজার একটি অনুষ্ঠান।

আপনাকে তারুণ্য নির্ভর কাজে বেশী যায়, কেন?
আমি নিজেও ইয়ুথ। চাইলে অনেক বয়সের চরিত্র করতে পারবো না। কিংবা অনেক ম্যাচিউর চরিত্র হয়তো অভিনয় করতে পারবো কিন্তু লুক, আউটফিট অনেকটাই এক্ষেত্রে অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ৪০-৫০ বছরের একজন মহিলার চরিত্রে কাজ করলেও আমাকে সেভাবে মানাবে না। আর নির্মাতারা আমাকে তারুণ্য নির্ভর কাজে বেশী উপযুক্ত মনে করেন বলেই মনে করি। তবে আমি চেষ্টা করে যাচ্ছি নতুন নতুন চরিত্রে নিজেকে মেলে ধরার।

মডেলিং, অভিনয় দুটোই করছেন। মনোযোগ দিয়েছেন বেশী কোথায়?
অবশ্যই অভিনয়ে সবসময় বেশী মনোযোগী।

কাজের ক্ষেত্রে কোনো সংকট অনুভব করেন?
অবশ্যই বাজেট সংকট অনুভব করি। বাজেট ভালো হলে নাটকগুলো আরও বেশী ভালো হতো। তবে টিভির চেয়ে অনলাইনে কাজের বাজেট বেশী থাকছে, সাড়াও বেশী আসছে। টিভির বাজেট ঠিক না থাকলে কিছু করার নেই।

ধারাবাহিক নাটকে দেখা যায় না কেন?
ধারাবাহিক নাটক একদমই করিনা। কারণ, ধারাবাহিকে কাজ করতে ভালো লাগে না। যা করেছি দু-বছর আগে। শুরুতে গল্প একভাবে শুরু হয়। কিছুদিন পর গল্প পরিবর্তন হয়ে যায়। ওভারঅল ধারাবাহিক নাটকে কোনোকিছুই ভালো লাগে না।

রেডিও জকি কেমন চলছে?
প্রতি শনিবার রাত ৯টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত ‘লাভ স্ট্রাক বাই সাফা কবির’ নামে একটি শো করছি এবিসি রেডিওতে। খুব উপভোগ করছি। আমি মনে করি, যতো কাজ করবো, ততো মানুষ পর্যন্ত পৌঁছাবে। ভক্তরাও চায় আমার সঙ্গে যুক্ত হতে। এই কাজের মাধ্যমে সেটা পারছে। তারা আমাকে খুদেবার্তা পাঠায়। আমার সম্পর্কে জানতে পারছে। আমি তাদের সঙ্গে কথা বলতে পারছি। এর মাধ্যমে বুঝতে পারছি দিন দিন আমার কাজের দর্শক বাড়ছে।

চলচ্চিত্রে কাজের আগ্রহ আছে?
অবশ্যই করতে চাই। পছন্দের চিত্রনাট্য এবং পরিচালকের জন্য অপেক্ষা করছি। বিশেষ করে যে পরিচালক দেখে আমার মনে হবে, হি ইজ দ্য ওয়ান!

Bellow Post-Green View