চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালের ডেন্টাল ইউনিটে খালেদা জিয়া

খালেদা জিয়ার দাঁতের মাড়িতে ইনফেকশন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। সেখানে তার দাঁতের মাড়িতে ইনফেকশন ধরা পড়ায় কেবিন ব্লক থেকে এ ব্লকের ডেন্টাল ইউনিটে নেয়া হয়েছে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার দাঁতের মাড়িতে ইনফেকশন হয়েছে। যে দাঁতের মাড়িতে ইনফেকশন হয়েছে সেই দাঁতটা ধারালো ছিল। সেটা ভোতা করা হয়েছিলো। এখন সেটা আবার ধারালো হয়ে মাড়িতে ইনফেকশন দেখা দিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

অন্যদিকে এর আগে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশে বিএনপি’র বিরুদ্ধে গুজব ছড়ানোর অভিযোগ তুলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন: বিএনপি রাজনীতির মাঠ এবং নির্বাচনে ব্যর্থ হয়ে অপপ্রচার করছে। তারা তাদের নেত্রীকে নিয়ে হুতাশ করছে। তাদের নেত্রী যতটা না অসুস্থ তার থেকে বেশি প্রচারের চেষ্টা করছে।

এর আগে শুক্রবার এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে আবারও আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

বিজ্ঞাপন

ওই সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন: গত এক সপ্তাহে খালেদা জিয়ার চার কেজি ওজন কমেছে। তিনি শুকিয়ে গেছেন। তিনি খেতে পারছেন না। তার স্বাস্থ্যের যে অবস্থা, তা এলার্মিং। তার ডায়াবেটিস বিশের নীচে নামছেই না। তিনি পা সোজা করতে পারছেন না। হাঁটতে তো পারেনই না, হুইল চেয়ার ছাড়া তিনি চলতেই পারেন না। তাকে হুইল চেয়ারে করেই ওয়াশ রুমে, শাওয়ার নিতে অথবা বিছানায় নিতে হয়। অথচ সরকার প্রধান থেকে শুরু করে সরকারের লোকেরা বলে বেড়াচ্ছে যে, আমরা তার (খালেদা জিয়া) স্বাস্থ্য নিয়ে প্রতিদিন বলে বেড়াচ্ছি। তার স্বাস্থ্য নিয়ে তার পরিবার, আমরা, দেশবাসী সবাই চরম উদ্বিগ্ন।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক আখতারুজ্জামান সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

এই রায়ের পরই খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়া হয়।

বিচারিক আদালতের এই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল ও জামিন আবেদন করেন খালেদা জিয়া। আদালত তাকে চার মাসের অর্ন্তবর্তীকালীন জামিন দিলেও অন্য মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোয় তিনি মুক্তি পাননি।

Bellow Post-Green View