চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দল, মত, ক্ষমতা নির্বিশেষে ধর্ষকের বিচার দাবিতে সোচ্চার শাকিব

ধর্ষণবিরোধী অবস্থানে উত্তাল গোটা দেশ। রাজধানী সহ দেশের বিভিন্ন জেলায় ধর্ষণ সহ নারী নিপীড়নের প্রতিবাদে চলছে গণঅবস্থান। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি আন্দোলনে সোচ্চার দেশের ছোট ও বড় পর্দার তারকারাও। সেই আন্দোলনেই যেন কণ্ঠ মেলালেন দেশের সিনেমার তারকা অভিনেতা শাকিব খান।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নিজের অফিশিয়াল ফেসবুকে ধর্ষণকে জঘন্যতম অপরাধ উল্লেখ করে দ্রুত বিচার দাবি করলেন ‘রাজনীতি’ ছবির এই নায়ক।

বিজ্ঞাপন

ধর্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে শাকিব খান বলেন, দেশে মহামারীর চেয়েও ভয়ংকরভাবে ছড়িয়ে পড়েছে ধর্ষণের মতো জঘন্যতম অপরাধ। এর কারণ ওইসব মানুষরূপী নরপশুদের নৈতিক অবক্ষয়, মাদকের বিস্তার, ধর্ষণসংশ্লিষ্ট আইনের সীমাবদ্ধতা, বিচার প্রক্রিয়ায় প্রতিবন্ধকতা এবং বিচারের দীর্ঘসূত্রতা। তিনি আরো বলেন, ‘দল, মত, ক্ষমতা সবকিছুর উর্ধ্বে গিয়ে ধর্ষণকারীদের দ্রুত বিচার নিশ্চিত চাই। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

ধর্ষককে মানুষ বলতে নারাজ শাকিব খান বলেন, ‘একজন নারী একজন মা, পৃথিবীর কোনো কিছু মায়ের সঙ্গে তুলনা হয় না। যারা একজন মা আর বোনকে অন্য চোখে দেখে, ধর্ষণের মানসিকতা মনের মধ্যে লালন করে বেড়ায়— তার কোনো পরিচয় হয় না। সে পুরুষ না কী, তার চেয়ে বড় তিনি কখনোই মানুষ নন। তার একমাত্র পরিচয় সে ধর্ষক।’

নারীকে শ্রদ্ধার চোখে দেখার আহ্বান জানিয়ে দেশের শীর্ষ এই তারকা অভিনেতা তার স্ট্যাটাসে উল্লেখ করেন, ‘সবকিছুর প্রথমে নারীর পরিচয় তিনি একজন মানুষ। সমাজ এখনও অনেকক্ষেত্রে নারীকে মানুষ হিসেবে গণ্য করতে চায় না! তারপরই একজন নারী কারও মা, কারও বোন। এই কারও মা, বোন, মানুষ সত্ত্বা নারীকে মানুষ হিসেবেই মানুষের শ্রদ্ধা করা উচিত, গণ্য করা উচিত, মান্য করা উচিত—এটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।’

তার আসন্ন সিনেমা ‘নবাব এলএলবি’ ধর্ষণের বিরুদ্ধে সমাজে সোচ্চার ভূমিকা পালন করবে, এমনটা ইঙ্গিত দিয়ে শাকিব বলেন, ‘আমি সচেতন মানুষ হিসেবে আমার দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে এই ধরনের ঘৃণিত অপরাধের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছি, ভবিষ্যতেও করে যাব। এমনকি আমার চলতি ছবি ‘নবাব এলএলবি’ সিনেমাতেও ধর্ষণের মতো জঘন্য বিষয়টিকে প্লট হিসেবে বেছে নিয়েছি।