চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Group

দন্ত চিকিৎসক মানিক সাহা ত্রিপুরার নতুন মুখ্যমন্ত্রী

বিজ্ঞাপন

ভারতের উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের আকস্মিক পদত্যাগের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে নতুন মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি মানিক সাহা।

এনডিটিভি বলছে, দলীয় কোন্দলের কারণে শনিবার বিপ্লব কুমার পদত্যাগ করায় নতুন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মানিক সাহাকে বেছে নিয়েছে বিজেপির বিধায়করা।

pap-punno

গত এপ্রিলে মানিককে রাজ্যসভায় পাঠায় বিজেপি। ৩ এপ্রিল শপথ নেন তিনি। সেই হিসেবে মাত্র ৪১ দিনের মাথায় মুখ্যমন্ত্রী মতো বড় পদে আসীন হলেন এই অধ্যাপক।

এর আগে বিধানসভা নির্বাচনের এক বছর আগে হঠাৎ করে পদত্যাগের ঘোষণা দেন ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। শনিবার গভর্নর এসএন আরিয়ার কাছে নিজের পদত্যাগপত্র জমা দেওয়ার কথা জানান তিনি।

Bkash May Banner

বিপ্লব কেন এভাবে পদ ছেড়ে দিলেন, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা। ত্রিপুরার রাজনীতিতেও নানা জল্পনা তৈরি হয়েছে। একটি সূত্রের দাবি, তাকে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের পক্ষ থেকে পদত্যাগ করতে বলা হয়েছিল। তবে এই খবরের আনুষ্ঠানিক সমর্থন মেলেনি।

মানিক সাহা পেশায় একজন দন্ত চিকিৎসক। পটনার সরকারি ডেন্টাল কলেজ এবং লখনউয়ের কিং জর্জেস মেডিকেল কলেজ থেকে ডেন্টাল সার্জারিতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন মানিক সাহা।

রাজ্যসভার ওয়েবসাইট অনুযায়ী, ত্রিপুরা মেডিক্যাল কলেজ এবং আগরতলার ডাঃ বিআরএএম টিচিং হাসপাতালে একজন অধ্যাপক হিসেবে ডেন্টাল সার্জারিও পড়ান মানিক সাহা। কংগ্রেস ছেড়ে ২০১৬ সালে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দেন মানিক। ২০২০ সালেই ত্রিপুরা বিজেপি শাখার সভাপতি নিযুক্ত হন তিনি। মানিক সাহা ত্রিপুরা ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতিও।

চলতি বছরের এপ্রিল মাসে, তিনি রাজ্যের একমাত্র আসনে রাজ্যসভায় নির্বাচিত হন। সমস্ত বিজেপি এবং আদিবাসী পিপলস ফ্রন্ট অফ ত্রিপুরা (আইপিএফটি) বিধায়করা মানিক সাহার পক্ষেই ভোট দেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ভানু লাল সাহাকে দৌড়ে অনেক পিছনে ফেলে দিয়ে জয়ী হন মানিক।

আগামী বছর অর্থাৎ ২০২৩ সালে ৬০ সদস্যের বিধানসভার নির্বাচন হবে ত্রিপুরাতে। মানিক সরকারের শাসনাধীন বামফ্রন্ট সরকারের ২৫ বছরের দীর্ঘ শাসনের অবসান ঘটিয়ে বিজেপি ৩৬টি আসন জিতেছিল এই রাজ্যে। তবে রাজনীতিবিদদের মতে, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেসের চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে পারে গেরুয়া শিবির।

বিজ্ঞাপন

Bellow Post-Green View
Bkash May offer