চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

থেমে নেই শুভ

সিনেমাতে কখনই যেটা হয়নি সেটা একবার হলেও করে দেখানোর চেষ্টা করেছেন চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ। ওজন কমিয়ে সেখান থেকে সিক্স প্যাক ফিগারে আসার জন্য শুভকে খাটতে হয়েছে দীর্ঘ কয়েকমাস।

ঘড়ির কাটার সঙ্গে মিল রেখে খাওয়া চলাফেরা ঘুম সবকিছুতে এনেছেন নিয়মতান্ত্রিক জীবন। বেশ কয়েকমাস তার দিনের বেশিরভাগ সময় কেটেছে জিমে। সময়টা কঠোর পরিশ্রমে শুভ তার সেই রূপান্তরিত হওয়ার গল্প ও কিছুকিছু ভিডিও দর্শকদের সামনে আনতে যাচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

আসন্ন ঈদুল আযহাতে আরিফিন শুভর অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে ‘আরিফিন শুভ ট্রান্সফরমেশন ভিডিও’ প্রকাশ করা হবে। তার আগে এলো টিজার। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ৪৯ সেকেন্ডের টিজার দেখে বোঝা গেল, নিজেকে নতুনভাবে হাজির করতে কতটা কাঠখড় পুড়িয়েছেন আরিফিন শুভ।

বিজ্ঞাপন

মূলত তার এ রূপান্তর আলোচিত ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর পর দ্বিতীয় প্রয়াস ফয়সাল আহমেদ ও সানী সানোয়ার পরিচালিত ‘মিশন এক্সট্রিম’ এর জন্য!

করোনায় ছবিটির মুক্তি থেমে গেছে। তবে শুভ থেমে নেই। তিনি নিজেকে নতুনভাবে আবিস্কার প্রসঙ্গে বলেন, সত্যি বলতে আমি ভেঙে পড়েছিলাম। কিন্তু চেষ্টা করতে করতে আমি হারবো, চেষ্টা করতে করতে মারা যাবো। কিন্তু আমি চেষ্টা করা থামবো না। আমরা মন থেকে যদি কিছু চাই এবং নাছোড়বান্দা হয়ে পড়ে থাকি তাহলে যে কোনোকিছু সম্ভব।

এদিকে আরিফিন শুভ তার ‘মিশন এক্সট্রিম’ ছবির শুটিং শেষে বলেছিলেন, অনেকগুলো নতুন বিষয় আছে এ ছবিতে। ব্যক্তিগতভাবে এরআগে এমন কাজ করিনি। এতো সংখ্যক লম্বা লিস্টের জনপ্রিয় শিল্পীদের নিয়ে কাজ হয়নি। আমিসহ পুরো ইউনিট চেষ্টা করছে প্রত্যেকেই একেবারে সেরাটা দিয়ে কাজ করার জন্য। কোনো কৃপণতা থাকছে না। এরপরেও ‘মিশন এক্সট্রিম’ সফল কিংবা ব্যর্থ হলে আমার খুব একটা কষ্ট লাগবে না। কারণ হলো, আমার সেরাটা দিয়েছি। আর এটাই আমার জন্য সাকসেস।

এও বলেছিলেন, ‘মিশন এক্সট্রিম’ নায়ক, নায়িকা, ভিলেনের ছবি নয়। এর প্রতিটি চরিত্র সমানভাবে গুরুত্বপূর্ণ। সেটা যেকোনো চরিত্রই হোক। এখানে লিড ক্যারেক্টার বলে কোনো কথা নেই। ছবি মুক্তির পর যারাই আছেন, তারাই আগামিদিনে ভালো কাজ করবেন।

আরিফিন শুভ ছাড়াও ‘মিশন এক্সট্রিম’-এর দুই কিস্তিতে অভিনয় করছেন সাদিয়া নাবিলা, ইরেশ যাকের, মাজনুন মিজান, সুষমা সরকার, দীপু ইমাম, শতাব্দী ওয়াদুদ, আরেফ, মনোজ, সুমিত, ইমরান, সুদীপ্ত, নাজমুস সাকিব, তারিক আনাম খানসহ অনেকেই। হাইভোল্টেজ ঢাকা অ্যাটাকের সাফল্যের পর ‘মিশন এক্সট্রিম’ দেশের দ্বিতীয় পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা। ছবিটি প্রযোজনা করছে কপ ক্রিয়েশন।