চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ত্রুটি সারিয়ে আবারও প্রস্তুত চন্দ্রযান-২

কারিগরী ত্রুটির কারণে উৎক্ষেপণের মাত্র ৫৬ মিনিট আগে যাত্রা থামিয়ে দেয়ার ঠিক এক সপ্তাহ পর ত্রুটি সারিয়ে আবারও চাঁদের উদ্দেশে রওনা করতে যাচ্ছে ভারতের দ্বিতীয় চন্দ্রাভিযান।

সোমবার স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ৪৩ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টা ১৩ মিনিট) চন্দ্রযান-২ উৎক্ষেপণ করা হবে বলে জানিয়েছে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা আইএসআরও।

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে সংস্থাটি জানায়, এবার আগের চেয়ে দৃঢ়ভাবে শতকোটি মানুষের স্বপ্নকে সঙ্গে করে চাঁদে নিয়ে যাচ্ছে এই মহাকাশযান।

চন্দ্রযান-২ নামে ১৫ কোটি মার্কিন ডলারের বিনিময়ে ভারতের এই চন্দ্র মিশনটি ভারতের স্থানীয় সময় ১৫ জুলাই দিবাগত রাত ২টা ৫১ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় রাত ৩টা ২১ মিনিট) দেশের পূর্ব উপকূলে অবস্থিত শ্রী হরিকোটা মহাকাশ কেন্দ্র থেকে যাত্রা করার কথা ছিল।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু উৎক্ষেপণের মাত্র ৫৬ মিনিট বাকি থাকতেই উল্টো গণনা বা কাউন্টডাউন বন্ধ করে দেয়া হয়। আইএসআরও’র বরাতে বিবিসি জানায়, মহাকাশযানটির লঞ্চ ভেহিকল সিস্টেমে ত্রুটি ধরা পড়ায় তাৎক্ষণিকভাবে উৎক্ষেপণ প্রক্রিয়া থামিয়ে দেয়া হয়।

এই মুহূর্তে ভারতের সবচেয়ে শক্তিশালী রকেট জিওসিংক্রোনাস স্যাটেলাইট লঞ্চ ভেহিকল (GSLV) মার্ক থ্রি বা ‘বাহুবলী’। সেটিরই কোনো একটি অংশের কারিগরি প্রক্রিয়ায় জটিলতা দেখা দেয়ায় উৎক্ষেপণ স্থগিত করে দেয়া হয় বলে ইঙ্গিত করা হয়েছিল।

উৎক্ষেপণের পর সফলভাবে চাঁদে অবতরণ করলে এটিই হবে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ করা প্রথম মহাকাশযান।

ত্রুটি সারিয়ে আবারও প্রস্তুত চন্দ্রযান ২
ছবি: আইএসআরও

আর ভারত হবে পৃথিবীর একমাত্র প্রাকৃতিক উপগ্রহের পিঠে মহাকাশযানের নিয়ন্ত্রিত অবতরণ (সফট ল্যান্ডিং) করানো চতুর্থ দেশ। এর আগে শুধু যুক্তরাষ্ট্র, ভারত এবং সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন এ কাজে সফল হয়েছিল।

চন্দ্রযান-২ মূলত চাঁদের পৃষ্ঠ পর্যবেক্ষণ করবে। সেখানে পানি ও খনিজের অস্তিত্ব খোঁজা এবং ভূমিকম্প পরিমাপসহ গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু দায়িত্ব রয়েছে মিশনটির।

শেয়ার করুন: