চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

তীরে এসে তরী ডুবল মোহামেডানের

বড় দেরি করে হাসল আশরাফুলের ব্যাট

লক্ষ্য ২৭৫ রানের। প্রতিপক্ষের দেয়া এ লক্ষ্যের একেবারে কাছে গিয়েও হারতে হয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকে। তীরে এসে তরী ডোবার ম্যাচে মোহামেডান পুড়েছে তিন রানের আক্ষেপে। প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে ৩ রানে হেরেছে সোহাগ গাজীর দল।

ম্যাচে নামার আগে মোহামেডান-দোলেশ্বরের পয়েন্ট ব্যবধান ছিল ৪। শিরোপা জয়ের কোনো ব্যাপার বা একে অপরকে ছাড়িয়ে যাওয়ারও কোনো হিসেব ছিল না। তবে উত্তেজনাকর এক ম্যাচই উপহার দিয়েছে দুদল।

বিজ্ঞাপন

প্রথম ব্যাট করে তিন ফিফটিতে মোহামেডানকে ২৭৫ রানের টার্গেট দেয় প্রাইম দোলেশ্বর। সর্বোচ্চ ৮৯ রান করেন ফরহাদ হোসেন। হাফসেঞ্চুরি করেন সাইফ হাসান (৫৫) ও সৈকত আলি (৬৫)।

শেষদিকে ২৮ বলে ৩৮ রান করে দলকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেন মার্শাল আইয়ুব। নির্ধারিত ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে দোলেশ্বরের স্কোর দাঁড়ায় ২৭৪।

বিজ্ঞাপন

মোহামেডানের হয়ে দুই উইকেট নিয়ে সফল বোলার শফিউল ইসলাম।

মোহাম্মদ আশরাফুলের ফিফটির সঙ্গে অন্যদের ছোট ছোট ইনিংসে ভর করে জয়ের দিকেই যাচ্ছিল মোহামেডান। জিততে জিততেও শেষ পর্যন্ত তিন রানের ঘাটতি পূরণ করতে পারেনি তারা।

আশরাফুল সর্বোচ্চ ৭৬ রান করেন। এছাড়া রাহাতুল ফেরদৌস ৩৭, নিহাদুজ্জামান ৩৫, ইরফান সুক্কুর ২৬, আব্দুল মাজিদ ২৫ ও রকিবুল ইসলাম ২২ রান করেন। ৯ উইকেটে ২৭১ রানে থামে মোহামেডানের ইনিংস।

দোলেশ্বরের হয়ে তাইবুর রহমান নেন তিন উইকেট। এছাড়া ফরহাদ রেজা ও মাহমুদুল হাসান দুটি করে উইকেট নেন।

হারে ডিপিএলের এ আসরে ছয় নম্বর দল হিসেবে শেষ করল মোহামেডান। ১৬ ম্যাচে সাত জয় ও নয় হারে তাদের পয়েন্ট ১৪। সমানসংখ্যক ম্যাচে দশ জয় ও তিন হারে প্রাইম দোলেশ্বরের পয়েন্ট ২০। ১৬ ম্যাচে আবাহনী ও রূপগঞ্জের সমান ২৬ পয়েন্ট হলেও রানরেটের হিসেবে শিরোপা জিতেছে আবাহনী। মঙ্গলবার সৌম্য সরকারের ডাবল সেঞ্চুরির ঝড়ে আকাশী-নীলরা উড়িয়ে দেয় শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকে।

Bellow Post-Green View