চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

তিন মাসের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে তিন বছর

Advertisement

ফ্যাশন উদ্যোক্তাদের নিয়ে গঠিত সংগঠন ফ্যাশন এন্টারপ্রিনিয়ায়র্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (এফইএবি) এর পক্ষ থেকে দেশীয় ফ্যাশন শিল্পের উপর আরোপিত ৫ শতাংশ ভ্যাট কমিয়ে আনা, ঈদকে সামনে রেখে স্বল্প মেয়াদের উৎসবকালীন ব্যাংক ঋণ প্রদানসহ অবৈধ পথে পোশাক আসা বন্ধ করতে সরকারের প্রতি দাবি জানানো হয়েছে।

এফইএবি কার্যালয়ে ‘বৈশাখের অর্থনীতি’ বিষয়ে মতবিনিময় সভায় সংগঠনের সভাপতি আজহারুল হক আজাদ আরো কিছু সুপারিশ তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, তিন মাস ধরে চলা রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে ফ্যাশন শিল্পখাতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে যার আর্থিক পরিমাণ আনুমানিক ১ হাজার কোটি টাকা। তবে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের হাওয়ায় রাজনৈতিক কর্মসূচি থিতিয়ে আসার কারনে বৈশাখী বিক্রি বাড়ে বলে তিনি জানান।

গত বছরের তুলনায় এ বছর ১০ শতাংশ বিক্রি বেশি হয়েছে। মোট বিক্রির পরিমাণ ছিলো প্রায় ১,৬৫০ কোটি টাকা।

আজাদ বলেন, কিছু দাবির ব্যাপারে সরকার সুনজর দিলে আগামী ঈদ উৎসবে বিগত দিনগুলোর ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে উঠা সম্ভব হবে। তবে পুরো ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে কমপক্ষে তিন বছর সময় লাগবে বলে তিনি জানান।

মতবিনিময় সভায় তোলা এফইএবি’র সুপারিশ এবং দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, দেশীয় ফ্যাশন শিল্পের সুরক্ষায় এই শিল্পের উপর আরোপিত ৫ শতাংশ ভ্যাট কমিয়ে আনা,  রাজনৈতিক অস্থিরতায় গত তিন মাসে এই শিল্প সংশ্লিষ্ট  প্রতিষ্ঠানগুলোর পুঁজি ভেঙ্গে চলতে হয়েছে তাই ঈদকে সামনে রেখে স্বল্প মেয়াদের উৎসবকালীন ব্যাংক ঋণ প্রদান, ঈদকে সামনে রেখে প্রতিবেশি দেশগুলো থেকে অবৈধ পথে পোশাক আনা বন্ধ করা এবং ঈদকে সামনে রেখে প্রতিবেশি দেশগুলো থেকে অবৈধ পথে ট্যাক্স ভ্যাট ফাঁকি দিয়ে আনা বিদেশী শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, পাঞ্জাবি বিক্রি বন্ধ করা।

গণমাধ্যমকমীদের সাথে মতবিনিময় সভায় এফইএবি এর পক্ষ থেকে আরো বক্তব্য রাখেন অঞ্জনস ফ্যাশন হাউসের সিইও মো. শাহিন আহমেদ।